প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :

অদ্ভুত সব রেস্তোরাঁ

একটা সময় ছিল যখন রেস্তোরাঁগুলোয় প্রাধান্য পেত তাদের খাবারের মান। ডেকোরেশনের দিয়ে এতো বিষয় বিত্তিক সাজের দিকে কেউ তেমন একটা নজর দিত না। তবে বর্তমানে সব কিছুতেই চলছে প্রতিযোগিতা। তাহলে আর রেস্তোরাঁর সাজ-সজ্জা কেনো বাদ যাবে? তবে কিছু কিছু রেস্তোরাঁ আছে যেটা শুধু সাজসজ্জার সাথে জড়িত নয়। কিছু ঘটনা, ইতিহাস অনেক কিছুই জড়িত থাকে। আজ আমরা তেমনই কিছু রেস্তোরাঁর সাথে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দিব।

নিউ লাকি রেস্তোরাঁ:

শতাব্দী প্রাচীন কবরের মাঝে বসে খেতে কেমন লাগবে আপনার? যেমনই লাগুক, অমদাবাদের বাসিন্দাদের বোধহয় মজাই লাগছে। তা না হলে কী কবরস্থানে খোলা রেস্তোরাঁ এত জমজমাট হয়। লোভনীয় সব দক্ষিণী খাবারে সাজানো এই রেস্তোরাঁয় খেতে হলে আপনাকে যেতে হবে অমদাবাদের লাল দরজা এলাকার নিউ লাকি রেস্তোরাঁয়। এখানে সাজানো সব টেবলের পাশে ছড়ানো রয়েছে এক ডজন সমাধি।

নেচার’স টয়লেট ক্যাফে:

নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে এই ক্যাফের সাজসজ্জা একটু অভিনব। ঠিকই ধরেছেন। ক্যাফের ভিতর সাজানো রয়েছে সারি সারি কমোড এবং ইউরিনাল। এগুলিই আদতে বসার জায়গা। রেস্তোরাঁর অন্দরসজ্জায় পুরনো দিনের আবহ আনা হয়েছে। একটু ভিন্ন স্বাদ নিতে আসতে পারেন অমদাবাদের এই ক্যাফেতে।

হাইজ্যাক ক্যাফে:

ভয় নেই। কেউ আপনাকে হাইজ্যাক করবে না। এটি অমদাবাদের বিখ্যাত চলমান ক্যাফে। দোতলা বাসের মধ্যেই সাজিয়ে তোলা হয়েছে রেস্তোরাঁ। খাবারের মজা নিতে নিতে এই বাস আপনাকে নিয়ে পাড়ি দেবে ছোট্ট ট্যুরে। ঘণ্টা দুই-তিন খাবারের সঙ্গে ভ্রমণের মজাও নিতে পারবেন খরিদ্দাররা।

ভেলি লেক ফ্লোটিং রেস্তোরাঁ:

জলে ভাসতে ভাসতেই ক্যান্ডেল লাইট ডিনারের মজা নিতে চলে আসুন কেরেলার ভেলি লেক ক্যাফেতে। ভেলি গ্রামে অবস্থিত এই ক্যাফের সাজসজ্জা পুরোদস্তুর গ্রামীণ জীবনের স্বাদ এনে দেবে। সাবধান! নড়বড়ে সাঁকো পেরিয়ে কিন্তু এই রেস্তোরাঁয় পৌঁছতে হবে।

বার স্টক এক্সচেঞ্জ, মুম্বই:

আপনি কি শেয়ার বাজারের সব খবর রাখেন? তা না হলে চলে আসুন বার স্টক এক্সচেঞ্জে। শেয়ারের ওঠাপড়ার সঙ্গে তাল মিলিয়েই এই পাবের খাবার এবং ড্রিঙ্কসের দাম বাড়ে কমে। অবাক হচ্ছেন! এসেই দেখুন না।

ক্রস ক্যাফে:

এই ক্যাফের আগে নাম ছিল হিটলার ক্রস ক্যাফে। হিটলার যুগের ইতিহাসের আবহ তৈরি করা হয়েছে এই ক্যাফেতে। খাবার স্বাদ নিতে নিতে আপনি পৌঁছে যাবেন ঐতিহাসিক যুগে। সম্প্রতি এই ক্যাফের নামে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। ক্রস শব্দটির মধ্যে একটি ‘স্বস্তিক’ চিহ্নের ডিজাইন এনেছেন রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ।

টেস্ট অফ ডার্কনেস:

গা ছমছমে পরিবেশে সুস্বাদু খাবারের মজা নিতে চাইলে চলে আসুন হায়দরাবাদের টেস্ট অফ ডার্কনেস ক্যাফেতে। গোটা রেস্তোরাঁতেই রয়েছে এক রকম আলো আঁধারি পরিবেশ। দৃষ্টিহীন মানুষেরা অন্ধকারের মধ্যেও জীবনকে কেমন করে উপভোগ করেন সেটা বোঝাতেই এমন পরিবেশ তৈরি করা হয়েছে।

৭০ এমএম:

সিনেমাপ্রেমীদের জন্য সুখবর। হায়দরাবাদের ৭০ এমএম রেস্তোরাঁ আপনাকে দেবে সিনেমা হলের আবহ। আস্ত একটি সিনেমা হলের আদলে তৈরি হয়েছে এই রেস্তোরাঁ। সারি সারি বলিউড অভিনেতা অভিনেত্রীর ছবির সাজানো রয়েছে রেস্তোরাঁর দেওয়ালে। সুস্বাদু খাবারের স্বাদ নিতে নিতে আপনি পৌঁছে যাবেন বি-টাউনে।

ইসি/