প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  নাভির স্মপর্কে আমরা অনেকে জানি আবার অনেকে জানি না, মানে জানার আগ্রহ নেই। নাভি মানব দেহের বহিরাঙ্গের একটি বিশেষ স্থান। মাতৃগর্ভে থাকা কালে মানব ভ্রূণে যে নাড়ির মাধ্যমে মায়ের শরীর থেকে খাদ্য সংবাহিত হয় শিশুর জন্মকালে তা কেটে ফেলা হয় এবং একটি প্যাঁচ দিয়ে কাটা মুখ বন্ধ করা হয়। এই সুস্পষ্ট অংশটি মানবদেহের তলপেটের ঠিক ওপরে চিরকাল দৃশ্যমান থাকে এবং নাভি নামে আখ্যায়িত। চিকিৎসা শাস্ত্রে নাভিকে বলা হয় Umbilicus। সকল স্তন্যপায়ী প্রাণী যাদের জন্ম মাতৃ জরায়ুতে তাদের নাভী থাকে।

 

মানবদেহে সম্মুখভাবে মাঝ বরাবর তলপেটের ‍ঠিক ওপরভাগে নাভির অবস্থান

কোন এক সময় ছিল নারীরা শাড়ী পরে থাকতো ঘোমটার আড়ালে। নারীর ঘোমটা খোলা মানা। এটা ছিল এক যুগ। এখনকার যুগে এর আর কোন অস্তিত্ব নেই।

এখনকার যুগ হল কে কত বেশী খোলা মেলা ভাবে নিজেকে সাজাতে পারে। একটা সময় শাড়ী পরা হত নাভির উপরে এখন শাড়ী পরা হয় নাভির যতটা নীচে নামা যায় ঠিক সেই স্থানে।

শুধু নাভির নীচে শাড়ী পরলেই তো হল না সেই জায়গাকে আকর্ষনীয় করে গড়েও তুলতে হয় সেটা আর কারো মাথায় সব সময় আসে না। তাই তাদের চিন্তা দূর করতেই বিশেষ কিছু যত্নের কথা আজ জানাবো।

শাড়ী নাভির উপরে হোক বা নীচে না কোন ভাবে নাভির স্বচ্ছতা এবং সৌন্দর্য্য ফুটে ওঠেই।

অনেকের দেখবেন শরীর থেকে নাভি ও তার নীচের অংশ কালো হয়, কারো বা হয় সারা পেট জুড়ে ফাঁটা দাগ, কারো চামড়া কুঁচকানো।

নাভির নীচের কালো দাগ দূর করবেন যেভাবে

মূলতানী মাটি, দু ফোঁটা পাতিলেবুর রস, দু ফোঁট বাদাম তেল গোলাপ জলের সঙ্গে মিশিয়ে পেষ্ট বানান। নাভি থেকে পেটের নীচ পর্যন্ত ভালো করে লাগান ২০ মিনিট পর পরিষ্কার করে ধুয়ে নিন। কিছুদিন করলে দেখবেন কালো ভাব দূর হয়ে গেছে, দাগও অনেক হালকা হয়ে গেছে।
টাটকা নিমের পাতা ভালো করে বেটে দাগের উপর লাগান। দাগ, ছোপ দূর হয়ে যাবে।
যাদের চামড়া কুঁচকানো তারা নারকেলের জল যতটা তুলসি পাতার রস ততটা নিয়ে নিয়মিত কুঁচকে যাওয়া পেটে লাগান উপকার পাবেন।
কারো যদি পেটের ত্বক ফাটে তা বন্ধ করতে হলে অল্প জলে বেসন গুলে পেষ্ট তৈরী করে লাগান। ১০-২০ মিনিট রাখুন এর পর ধুয়ে দিন বা মুছে দিন।