প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :    মনীশ পাণ্ডে ও দীনেশ কার্তিকের ব্যাটে ভর করে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে ৬ উইকেটে হারিয়ে নিদাহাস ট্রফির ফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেল ভারত। আসরের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে শুরু করা ভারতই ৩ ম্যাচে ২ জয়ে অনেকটাই নিশ্চিন্ত।

 

বৃষ্টির কারণে প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে খেলা শুরু হতে আধঘণ্টা দেরী হয়। প্রতি ইনিংস থেকে ১ ওভার কমিয়ে করা হয় ১৯ ওভারের ম্যাচ। স্লো ওভার রেটের কারণে শ্রীলঙ্কার নিয়মিত অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক দীনেশ চান্দিমাল ২ ম্যাচ নিষদ্ধি হওয়ায় তাঁর জায়গায় টস করতে যান থিসারা পেরেরা। একাদশে ঢোকেন সুরঙ্গা লাকমল। ভারতও ঋষভ পান্টকে বসিয়ে খেলিয়েছে লোকেশ রাহুলকে। টসে হেরে আগে ব্যাট করে কুশল মেন্ডিসের টানা দ্বিতীয় হাফসেঞ্চুরিতে শ্রীলঙ্কা ১৯ ওভারে ৯ উইকেটে করে ১৫২ রান। কুশল সমান ৩ বাউন্ডারি ও ছক্কায় ৩৮ বলে করেন ৫৫ রান। উপুল থারাঙ্গা ২২, দানুস্কা গুনাতিলকে ১৭ ও দাসুন শানাকা করেন ১৯ রান। ৪ ওভারে ২৭ রানে ৪ উইকেট নেন শার্দূল ঠাকুর। ওয়াশিংটন সুন্দরের জোড়া শিকার, ১ উইকেট করে নিয়েছেন যযুবেন্দ্র চাহাল ও বিজয় শঙ্কর।

 

১৫৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় ওভারেই আকিলা ধনঞ্জয়ের বলে কাভারে ক্যাচ তুলে দিয়ে বিদায় নেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা। নেতৃত্বের চাপ তাঁর ব্যাটিংয়ে ভালোই প্রভাব ফেলছে। ওয়ানডেতে তিন ডাবল সেঞ্চুরির মালিক এই সিরিজে এখনো ব্যাটিংয়ে নিজের সামর্থযের প্রমাণ রাখতে পারেননি। শিখর ধাওয়ানও সেই আকিলা ধনঞ্জয়ের পরের ওভারে আউট হয়ে যান ৭ রান করে। একাদশে ঢোকা লোকেশ রাহুলও পা দিয়ে স্টাম্প ভেঙে ফেলেন জীবন মেন্ডিসের বল খেলতে গিয়ে। দ্রুত রান তুলে পালটা জবাব দিচ্ছিলেন সুরেশ রায়না, কিন্তু ১৫ বলে ২৭ রানের ইনিংসটার সমাপ্তি থিসারা পেরেরার হাতে মিড অফে ক্যাচ তুলে দিয়ে। ৮৫ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ভারত যখন ধুঁকছে, তখন দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিলেন ভারতীয় দলে নিয়মিত জায়গা না পাওয়া দুজন; মনীশ পাণ্ডে ও দীনেশ কার্তিক।

 

পঞ্চম উইকেটে দুজনের অর্ধশত রানের জুটিতেই ম্যাচটা হাতছাড়া হয়ে যায় শ্রীলঙ্কার। কার্তিক ৫ বাউন্ডারিতে ২৫ বলে অপরাজিত ৩৯ রান করেন, মনীশের ৪২ রান আসে ৩১ বলে। ৯ বল হাতে রেখে জিতে আসরে ৩ ম্যাচের দুটিতে জিতে ৪ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে গেল ভারত। পরের ম্যাচে রোহিত শর্মার দল খেলবে বাংলাদেশের বিপক্ষে।