প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :      আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, সরকার পতনের  চক্রান্ত শুরু হয়েছে। আগামী কয়েকদিন আরো গভীর ষড়যন্ত্র হবে।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে আয়োজিত বর্ধিত সভায় নাসিম এ সব কথা বলেন। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এলে দেশ আবারও অন্ধকারের দিকে যাবে।

আওয়ামী লীগ কোনোভাবেই দেশকে আর অন্ধকারের দিকে যেতে দিতে পারে না উল্লেখ করে নাসিম বলেন, একাত্তর ও পঁচাত্তরের পরাজিত শক্তি আবার ক্ষমতায় এলে দেশ আবারো সন্ত্রাসী ও জঙ্গিদের অভয়ারণ্য হিসেবে পরিণত হবে।

আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, তাই আগামী জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগ কাউকে কোন ধরনের ছাড় দেবে না।

সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলার প্রতিবাদে আগামীকাল বিকেল ৩টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে এ বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ ও সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক আকতার হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কামাল চৌধুরী ও সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মোর্শেদ কামাল।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। দেশকে অস্থিতিশীল করে আগামী জাতীয় নির্বাচনকে ভন্ডুল করার জন্যই বিএনপি জঙ্গিবাদী শক্তিকে দিয়ে এ হামলা চালিয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনের আর মাত্র নয় মাস বাকি রয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কোনো ফর্মুলা দিয়ে লাভ হবে না।

নাসিম বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনকে ভন্ডুল করার জন্য চক্রান্ত যেমন চলছে, তেমনি আরো চক্রান্ত হবে। জনগণকে সচেতন হয়ে অতীতের মতো বিএনপি-জামায়াতের যেকোনো ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে হবে।