প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :   সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহারকারীদেরকে না জানিয়েই ৫০ মিলিয়ন গ্রাহকের তথ্য নিজেদের বাণিজ্যিক প্রয়োজনে ব্যবহার করেছিল রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ এনালিটিকা। পরে এ তথ্য ফাঁস হলে আলোড়ন শুরু হয়। এরই প্রেক্ষিতে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ স্বীকার করেছেন তারা ‘ভুল করেছেন’। ফেসবুকে গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আনা হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

 

কিন্তু গ্রাহকের অজ্ঞাতে বাণিজ্যিক ও রাজনৈতিক উদ্দেশে তাদের তথ্য ব্যবহার করার এই খবর ছাড়ায় গেলে ফেসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গকে ব্রিটিশ সংসদে তলব করা হয়।

 

এ বিষয়ে ফেসবুকে দেওয়া এক বিৃবতিতে ফেসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গ বলেন, তাদের ভুল হয়েছিল এবং গ্রাহকদের তথ্য তৃতীয় পক্ষের হাতে চলে যাবার ঘটনাটি ‘গ্রাহকদের সাথে বিশ্বাসভঙ্গ’ করার সামিল বলেন তিনি।

 

বিভিন্ন এ্যাপ ভবিষ্যতে যাতে ফেসবুককে ব্যবহার করে গ্রাহকদের তথ্য সহজে হাতিয়ে নিতে না পারে সেজন্য সামনের দিনগুলোতে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আরও বেশ কিছু পরিবর্তন আনার অঙ্গিকারও করেন ফেসবুক প্রধান।

 

এ ব্যাপারে ফেসবুকের সিইও মি. জাকারবার্গ গ্রাহকদের উদ্দেশে বলেন, আপনার তথ্যের নিরাপত্তা দেওয়া আমাদের দায়িত্ব। কিন্তু সেটি দিতে ব্যর্থ হলে আমাদের সেবা দেওয়ার কোনও অধিকার থাকবে না।”

 

জাকারবার্গ আরও বলেন, “আমি ফেসবুক শুরু করেছি এবং দিনশেষে এই প্ল্যাটফর্মে যাই ঘটুক না কেন দায়-দায়িত্বও আমার।”

উল্লেখ্য, ক্যামব্রিজ এনালিটিকা ট্রাম্পের পক্ষে ডিজিটাল প্রচারণা চালানোর সুবিধার জন্য গ্রাহকদের তথ্য ফেসবুক থেকে কৌশলে হাতিয়ে নেয়-পরে এই অভিযোগ প্রকাশিত হওয়ার পরপরই তুমুল আলোড়ন শুরু হয়। এমনকি গত মঙ্গলবার ক্যামব্রিজ এনালিটিকার প্রধান নির্বাহীকে চাকরি থেকে বরখাস্তও করা হয়।