প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) লালন শাহ হল এলাকায় মধ্যরাতে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটেছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত ১টার দিকে পরপর ছয়টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে বলে জানা যায়।

 

 

ককটেলের বিকট শব্দে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে বিশ্ববিদালয়ের আবাসিক হলগুলোর শিক্ষার্থীরা।

 

 

এ বিষয়ে লালন শাহ হলের কয়েকজন আবাসিক শিক্ষার্থী জানান, রাত ১টার দিকে হঠাৎ শব্দ শুনে তারা ভেবেছিলাম পার্শ্ববর্তী রাস্তায় গাড়ির চাকা ফেটে যায়। পরে আরো কয়েকটি শব্দ শুনে অতঙ্কিত হয়ে পড়েন তারা। কিন্তু ঝামেলার কথা চিন্তা করে দরজা বন্ধ করে বসেছিলেন। পরপর প্রায় আটটি বিস্ফোরণের শব্দ  হয়েছে বলে জানান তারা।

 

 

দলীয় সূত্রে জানা যায়, মুক্তিযোদ্ধার এক সন্তানকে মারধর করে হল থেকে বের করে দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান এবং শৈলকুপা গ্রুপের শাকিল আহম্মেদ সুমনের অনুসারী কর্মীদের মধ্যে দিনভর উত্তেজনা চলে। পরে রুম থেকে ওই ছেলেকে বের করে দেন সভাপতির কর্মীরা। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এমন বিস্ফোরণ হতে পারে বলে ধারণা করছেন ছাত্রলীগ কর্মীরা।

 

 

ওই হলে অবস্থানকারী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহিনুর রহমান বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।

আমি ঘুমিয়েছিলাম। সকালে উঠলে নেতাকর্মীরা আমাকে বিষয়টি অবগত করেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান বলেন, ‘এমন কোনো ঘটেছে বলে বলে আমার জানা নেই। আমি ক্যাম্পাসের বাইরে আছি। ক্যাম্পাসে এসে খোঁজ খবর নেব। ‘ ইবি থানার ওসি রতন শেখ বলেন, ‘ক্যাম্পাসে বিস্ফোরণের কোনো  ঘটনা আমাদের জানা নেই। কোনো শিক্ষার্থী আমাদের কাছে অভিযোগ করেননি।