প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  গ্রীষ্মকালে নগরে বসবাসকারীদের বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়ায় বাড়তি তাপমাত্রা। বিশেষ করে ঘরবাড়ির ভেতরের তাপমাত্রা অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পায়। তবে এ তাপমাত্রা কয়েকটি পদ্ধতিতে নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

 

বায়ু পরিশোধনে গাছ

বাড়ির ভেতরে কয়েকটি গাছ লাগানো হলে তা বায়ু পরিশোধন করে এবং অক্সিজেন বৃদ্ধি করে। এ ক্ষেত্রে এমন গাছ লাগানো উচিত যা বেশি অক্সিজেন ছাড়ে এবং বায়ু পরিশোধন করে। এতে বাড়ি ঠাণ্ডাও থাকে।

 

পর্দা ব্যবহারে কৌশল

ঘরে যখন প্রখর সূর্যালোক পড়ে তখন পর্দা দিয়ে তা আটকে দিতে হবে। এতে বাড়তি তাপ আসবে না। আবার যেদিকে রোদ নেই সেদিকের পর্দা সরিয়ে উন্মুক্ত করে দিতে হবে যাতে বাতাস প্রবেশ করতে পারে।

 

ভেন্টিলেটর

বাড়িতে গ্রীষ্মকালে বাতাস ঢোকার বা বের হওয়ার জন্য অবশ্যই ছোট ছোট ভেন্টিলেটর রাখতে হবে। এগুলো বাড়ির বাড়তি তাপ নিয়ন্ত্রণে খুবই কার্যকর।

 

একজস্ট ফ্যান

বাড়ির সঙ্গে বাইরের তাপমাত্রার পার্থক্য এখন অনেক বেড়ে যাচ্ছে। কারণ বাড়ির ভেতরের চুলা, ফ্রিজ, কম্পিউটার ও টিভির মতো জিনিস তাপ উৎপন্ন করে। এ তাপ বের করে দিতে একজস্ট ফ্যান ব্যবহার করা যেতে পারে। এতে ভেতরের ও বাইরের তাপমাত্রার পার্থক্য কমবে এবং বাড়ি ঠাণ্ডা হবে।

 

রাতের হাওয়া

দিনের বেলা আবহাওয়া গরম থাকলে তার সঙ্গে সঙ্গে ঘরবাড়ি গরম হয়ে যায়। কিন্তু রাতে আবহাওয়া কিছুটা ঠাণ্ডা হয়ে যায়। এ সময় বাইরের ঠাণ্ডা হাওয়া প্রবেশ করানো সম্ভব হলে তা বাড়ি ঠাণ্ডা রাখতে যথেষ্ট কাজে দেয়।