প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :      এক বেসরকারি টেলিভিশনে সরাসরি প্রচারিত হয় ইসলাম নিয়ে প্রশ্নোত্তরমূলক বিশেষ অনুষ্ঠান ‘শরিফ মেটাল প্রশ্ন করুন’। এ অনুষ্ঠানে কুরআন ও হাদিসের আলোকে দর্শক-শ্রোতাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেয়া হয়। এবারের পর্বে উত্তর দিয়েছেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা মুফতি কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম।

প্রশ্ন: মৃত ব্যক্তিকে গোসল করানোর পদ্ধতি কী?

উত্তর: মৃত ব্যক্তিকে গোসল করানোর ব্যাপারে বুখারী শরীফে আছে, নবী কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার এক কন্যার মৃত্যুর পর বলেন, শরীরের ডানপাশের অঙ্গগুলো আগে ধৌত করো।

 

অজুর মতো করেই শুরু করতে হবে। প্রথমে ডানহাত কবজি পর্যন্ত তিনবার, তারপর বামহাত কবজি পর্যন্ত তিনবার, তারপর কুলি, তারপর নাকে পানি, তারপর চেহারা ধুয়া, তারপরে দুহাত, তারপরে মাথা মাসাই। মাথা মাসাই পর্যন্ত করে থামবে। তারপর সারা শরীরে তিনবার, পাঁচবার করে ধৌত করতে হবে। নবীজী বলেছেন, যদি পরিষ্কার না হয় বলে মনে হয় তাহলে সাতবার কিংবা তারও বেশি ধৌত করা যাবে। পুরো গোসল শেষে দুইবার পা ধুয়ে ফেললেই গোসল শেষ হয়ে যাবে। নবীজী পানির সাথে বরই পাতা ব্যবহার করতে বলেছেন। আর একদম শেষবারের পানি ঢালার সময় একটু কর্পূর ব্যবহার করতে বলেছেন। এটা সহীহ বুখারীর হাদিস। এভাবেই গোসল করাতে হবে।

 

প্রশ্ন: আধুনিক যুগে নারী ও পুরুষের শরীরে কিংবা হাতে ট্যাটু করতে দেখা যায়। এ নিয়ে ইসলামী শরিয়ত কী বলে?

উত্তর: ট্যাটু করা নিয়ে সহীহ হাদিস গ্রন্থগুলোতে অভিসম্পাত করা হয়েছে। যিনি ট্যাটু আঁকেন এবং যারা ট্যাটু করতে বলেন তাদের সকলকেই লান্‌ত দেয়া হয়েছে। এগুলোর পেছনে টাকা খরচ করা অপচয়।

 

প্রশ্ন: আল্লাহর ৯৯টি নাম অজু ছাড়া তেলাওয়াত করা যাবে কিনা।

উত্তর: কুরআন তেলওয়াত ছাড়া অন্য যতকিছু আছে সবকিছুই অজু ছাড়া পড়া বৈধ। হজরত আয়েশা রা. থেকে বর্ণিত বোখারী শরীফে আছে, নবী কারিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম জীবনের সর্বাবস্থায় অজু থাকা অবস্থায় অথবা অজু ছাড়াই আল্লাহর জিকির করতেন। এটার ব্যাপকতা থেকেই বুঝা যায় যে অজু ছাড়া তেলাওয়াত করা যাবে। এমনকি পিরিয়ডগ্রস্থ নারীরাও ঈদের নামাজে যেতে পারবে, তবে নামাজ পড়বে না, জিকির আসগারের সাথে সংযুক্ত হবে।