প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :     চার বছর পর নতুন করে জাতীয় টেস্ট দলে সুযোগ পেয়ে সবাইকে চমকে দিয়েছিলেন আব্দুর রাজ্জাক। অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম সিরিজে দলে সুযোগ পান ৩৫ বছর বয়সী তিনি। সেই পুরনো ঘূর্ণিজাদুও দেখা যায় তার বাম হাতের কারিশমায়। রাজ্জাকের মতোই আরেক ক্রিকেটার ঘরোয়া ক্রিকেটে রান বন্যা বইয়ে দিয়ে অপেক্ষায় আছেন জাতীয় দলের। তিনি তুষার ইমরান।

 

২০০৭ সালের জুলাইয়ে সর্বশেষ টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন তুষার। একই বছর খেলেছেন সর্বশেষ তারপর থেকে গত ১১ বছর ধরেই ঘরোয়া ক্রিকেটের রাজা তুষার। বয়স এখন ৩৪। এই বয়সে জাতীয় দলে ফেরার সুযোগ প্রায় নেই বললেই চলে। আরও সমস্যা আছে। তুষার সাধারণত যে পজিশনে ব্যাট করেন, পারফর্মেন্স দেখিয়ে জাতীয় দলের সেই পজিশনগুলো দখল করে রেখেছেন সাকিব-মুশফিক-রিয়াদের মতো প্রথম সারির ব্যাটসম্যানরা। তাই তুষার চান, পারফর্মেন্স দিয়ে তাদের টপকে যেতে।

পারফর্মেন্সের কথা যেহেতু আসল, তবে তুষারের পারফর্মেন্সের দিকে একবার ফিরে তাকানো যাক। সাদা পোশাকে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে করেছেন ১০ হাজার রান। তার ২৮ সেঞ্চুরিও বাংলাদেশের রেকর্ড। গত মৌসুমেই করেছেন এক মৌসুমে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড।

এবার জাতীয় লিগে ৬ ম্যাচে ৫৩.৮৬ গড়ে করেছেন ৩৭৭ রান। বিসিএলে এখনও পর্যন্ত ৪ ম্যাচে ৪ সেঞ্চুরিতে ৫৫৮ রান করেছেন ১১১.৬০ গড়ে। তার মধ্যে দুই সেঞ্চুরি করেছেন এক ম্যাচের দুই ইনিংসে। এই বয়সেও তিনি সাদা পোশাকে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের রানমেশিন। প্রশ্ন আসতেই পারে, রাজ্জাক যদি নজরকাড়া পারফর্মেন্স দেখিয়ে জাতীয় দলে ফিরতে পারেন, তুষার কেন নয়? কে জানে, হয়তো এই রানমেশিনকে ভবিষ্যতে দেখাও যেতে পারে জাতীয় দলের হয়ে সাদা পোশাকে।