প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :    হিন্দু রীতি অনুযায়ী লগ্ন দেখেই বরযাত্রী পৌঁছান কনের বাড়িতে। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরে দেখা যাচ্ছে, বরযাত্রীদের অনেকেই একটু বেসামাল হয়ে পৌঁছান কনের বাড়ি। সেটাও নাকি ‘আনন্দের অংশ’!

 

কিন্তু, তাতে অনেক সময় সমস্যা তৈরি হয় বলে জানিয়েছেন ভারতের কর্নাটকের বেলাগাভি তালুকের বেলাবতি গ্রামের বাসিন্দারা।

মাসখানেক আগেই এ ধরনের ঘটনা ঘটেছিল বেলাবতিতে। মদ্যপ অবস্থায় ৫০ জন যুবক গ্রামের এক ধর্মীয় অনুষ্ঠান ভণ্ডুল করে দিয়েছে সেখানে।

পরে নারীরা গ্রাম পঞায়েতের কাছে অনুরোধ জানায়, গ্রামে মদ কেনাবেচা বন্ধ করার জন্য। প্রশাসন পর্যন্ত গড়ায় ব্যাপারটি। কিন্তু কোনো ফল হয়নি।

শেষে গ্রাম পঞ্চায়েত সিদ্ধান্ত নেয়, গ্রামে সব ধরনের নেশার দ্রব্য নিষিদ্ধ করে দেওয়া হবে। একই সঙ্গে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয় বরযাত্রী আসাতেও। সন্ধ্যা ৭টার পরে বাজনা বাজিয়ে বরযাত্রী ঢুকতে পারবে না। এই নিষেধাজ্ঞার অবমাননা হলে দশ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে বলেও জানা গেছে।

বেলাবতি গ্রামের চারপাশে প্রচুর পরিমাণে কাজু গাছ রয়েছে। গ্রামের বেশ কয়েকজন এই কাজু থেকেই মদ তৈরি করতো বলে সংবাদমাধ্যমের খবর। অবৈধ এই নেশার দ্রব্যে আসক্ত হয়ে পড়ছিলেন গ্রামের যুবকরাও।

ফলে, এক ঢিলে দুই পাখি শিকারে সফল হন বেলাবতি গ্রামবাসীরা। প্রসঙ্গত, আশেপাশের বেশ কয়েকটি গ্রামও উদ্বুদ্ধ হয়েছে বেলাবতির কীর্তিতে।