প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :     সিরিয়ায় চলমান গৃহযুদ্ধে বিমান হামলা থেকে বাঁচতে মাটির নিচের বাংকারে নেয়া হচ্ছে পাবলিক পরীক্ষাগুলো। সিরিয়ার বেশিরভাগ স্কুল এখন পরিত্যক্ত। ওইসব স্কুলের শিক্ষকরা এখন পাড়া-মহল্লায় ছোট্ট ও অস্থায়ী স্কুল বসিয়েছেন। সেখানেই চলছে ছাত্রছাত্রীদের ক্লাস নেয়া।

বছরের পর বছর চলছে সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ। জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস ও বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে লড়াই করছে প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের বাহিনী।

আট বছরের এ যুদ্ধে ধ্বংসের দ্বরাপ্রান্তে উপনীত দেশটি। সরকারি-বেসরকারি সব ধরনের অবকাঠামো ধ্বংস হয়ে গেছে। এক কথায়, সিরিয়া এখন বিরান পোড়বাড়ী।

ছাত্রছাত্রীর সংখ্যাও আগের থেকে অনেক কমে গেছে। তাদের অনেকেরই স্কুলড্রেস নেই। নেই বই-খাতা-স্লেট। খালি পায়েই অস্থায়ী স্কুলে আসে তারা। প্রতিবেদনে বলা হয়, সিরিয়ার সবচেয়ে বড় প্রদেশ ইদলিব। এর মধ্যেই পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে বাংকারে।