প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :     আমরা কোন বিষেশ কাজে গেলে অমনোবল হয়ে যায় , কিন্ত কাজটি করার মতো আমাদের মধ্যে যথেষ্ঠ শক্তি আাছে কিন্তু আমরা কাজে লাগাই না। আমাদের ইচ্ছা শক্তিকে আমার হারিয়ে ফেলি। আমাদের সবারই নানা মাত্রার ইচ্ছাশক্তি রয়েছে। আর এ ইচ্ছাশক্তি নানা অনুশীলনের মাধ্যমে বাড়ানো সম্ভব। এ লেখায় থাকছে তেমন ১০টি কাজ।

 

১. বিরতি নিন

মানসিক শক্তিরও শেষ আছে। একটি দিনে আপনি যদি অনেকখানি মানসিক শক্তি ব্যয় করে ফেলেন তাহলে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিন। এতে আবার নতুন করে মানসিক উদ্যম পাওয়া যাবে।

২. আত্মবিশ্বাস

কেউই নিখুঁত নয়। তার পরেও নিজের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন মানসিক শক্তি বাড়াতে সহায়তা করে।

৩. দুর্বল মুহূর্ত থেকে শিখুন

আমাদের নানা দুর্বল মুহূর্ত থাকে, যে সময়টি ভালো ছিল না। কিন্তু পর্যাপ্ত চেষ্টা ও পরিশ্রমে সে দুর্বলতা কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হয়েছে। পরবর্তীতৈ এমন মুহূর্ত সব সময় স্মরণ করতে হবে এবং তা থেকে অনুপ্রেরণা নিতে হবে। ৪. ধ্যান মানসিক চাপ কমাতে ও ইচ্ছাশক্তি বাড়াতে ধ্যানের তুলনা হয় না। ধ্যান দেহ ও মনকে প্রশান্ত করে এবং মানসিক শক্তিও বাড়ায়। ৫. কঠিন কাজটি আগে করুন আপনার মানসিক শক্তির একটি সীমা রয়েছে। আর এ সীমার মাঝে থেকেই সর্বোচ্চ কাজ করার জন্য প্রয়োজন কঠিন কাজটি আগে করা। এতে পরবর্তী কাজগুলো তুলনামূলকভাবে সহজসাধ্য বলেই মনে হবে। ৬. তাড়না দমন করুন আবেগ কখনো কখনো কোনো নিয়ম ছাড়াই যুক্তিকে হার মানায়। আর ইচ্ছাশক্তি বা আবেগের অনুশীলন হতে পারে প্রিয় কোনো কাজ বাদ দিয়ে। ৭. দীর্ঘ সময়ের চিন্তা করুন স্বল্প সময়ের জন্য কোনো কাজকে অতি প্রয়োজনীয় মনে হলেও তা দীর্ঘমেয়াদে ভিন্ন হতে পারে। এ বিষয়টি মাথায় রাখলে আপাতদৃষ্টিতে কোনো কঠিন কাজ করার মতো মানসিক শক্তি অর্জন করা সম্ভব হবে। ৮. পর্যাপ্ত ঘুম ও বিশ্রাম

গুছিয়ে কাজ করার ক্ষমতা বাড়াতে পর্যাপ্ত ঘুম ও বিশ্রাম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আর এটি মানসিক শক্তিও বৃদ্ধি করে।

৯. মিষ্টি খাবারে আত্মবিশ্বাস
গবেষণায় ইচ্ছাশক্তি কমে যাওয়ার সঙ্গে রক্তের চিনির মাত্রা কমে যাওয়ার সম্পর্ক পাওয়া গেছে। আর মিষ্টি খাবারের মাধ্যমে বাড়তি কিছু চিনি গ্রহণ করতে পারলে আত্মবিশ্বাস কিছুটা হলেও বাড়ানো সম্ভব হয়।

১০. মানসিক অনুশীলন করুন

দেহের অনুশীলনের মতোই মানসিক অনুশীলনও যথেষ্ট কার্যকর। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এতেও আপনার দক্ষতা বাড়বে। এসব অনুশীলনের মধ্যে রয়েছে ধাঁধাঁ সমাধান কিংবা মজার সিনেমা দেখার সময়েও না হাসা।