প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :      প্লেটোনিক প্রেম সম্পর্কে জানা থাকলেও আম জনতার কাছে ভালবাসা মানে মন থেকে শুরু করে শরীর সবই৷ ভালবাসার মানুষটি যেমন হৃদয় জুড়ে থাকে তেমন তাকে নিজের শরীরে মিশিয়ে নিতেও চান প্রেমিক বা প্রেমিকা৷ প্রেম, আদর কিংবা যৌনতা- সবকিছুর ক্ষেত্রেই ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ চুম্বন৷

 

চুম্বন প্রেমিকযুগলের সম্পর্ককে কেবল মজবুতই করে না, যৌনতাকে আরও আকর্ষনীয় করে তোলে৷ তাই প্রেমকে আরও জোরদার করে তুলতে চুমু একদম পারফেক্ট হওয়া দরকার৷ চুমু খাওয়ার সময় মনে রাখা উচিত, কেবল ভালবাসাই ভালবাসার মানুষটিকে নিজের করে রাখার জন্য সব নয়। সুন্দর চুমু খাওয়াও প্রেমকে আরও মধুর করে তোলে৷

কিন্তু চমু কি আর যেমন তেমন করে খাওয়া যায়? নাকি যেমন তেমন চুমু খেলে মন ভরে? মনে রাখা উচিত চমু খাওয়া একটা শিল্প৷ যিনি যত ভাল চুমু খান তিনি তত বেশি আকর্ষণীয়৷ প্রশ্ন জাগে ভাল চুমু খাওয়া যায় কীভাবে? ভাল চুমু খাওয়ার কয়েকটি টিপস রইল নীচে।

কন্ট্রোল : ভাল চুমু খাওয়ার ক্ষেত্রে সবার প্রথমে যেই জিনিসটি রপ্ত করতে হবে, তা হল কন্ট্রোল৷ সংযত থেকে চুমু খান। বেশি উত্তেজিত হয়ে চুমু খেতে গেলে হিতে বিপরীত হতে পারে৷ তাই সংযত হয়ে চুমু খান৷

ঠোঁটের খেলা : চুমু পুরোপুরি ঠোঁটের খেলা৷ শরীর, সৌন্দর্য- এসবের বাইরে গিয়েও ঠোঁটের সঠিক ওঠানামাই চুমুকে পরিপূর্ণতা দান করে৷ তাই চুমু খাওয়ার সময় ঠোঁটের খেলায় নজর দিন৷

প্র্যাকটিস : প্র্যাকটিসই সবকিছুকে পারফেক্ট করে তোলে৷ চুমু খাওয়ার ক্ষেত্রেও সেই এক কথাই প্রযোজ্য৷ প্রথমবার চুমু খেতে গেলে যে সমস্যা হবে, পঞ্চমবার সেই সমস্যা হবে না৷ নিজের চুমু খাওয়াকে শিল্পজ্ঞানে দেখলেই আরও রোমান্টিকভাবে পার্টনারকে চুমু খাওয়ার ইচ্ছে জাগবে আপনার৷ তাই প্রথম চুম্বনে পুরো ব্যাপারটা মনের মতো না হলেও আশাহত হবেন না। প্র্যাকটিস করে যান৷ কোন না কোন দিন ইমরান হাশমিকেও টেক্কা দিতে পারবেন৷

রোমান্টিক হোন : ঠোঁটের খেলা কিংবা শ্বাসের ওঠাপড়া এই বিষয়গুলোকে নিয়ে অতিরিক্ত ভেবে চুমু খেতে গিয়ে যদি নিজের রোমান্টিসিজম হারিয়ে ফেলেন, তবে কিন্তু মুশকিল হবে৷ তাই চুমু খাওয়ার সময় নিজের প্রেমকে জাগিয়ে রাখুন। ভালবাসা থাকলেই ভালবাসার মানুষকে আদর করার ইচ্ছে আরও তীব্র হবে৷

হিংস্র হবেন না : চুমু খাওয়া বা লিপলক মানেই ঠোঁটে কামড়ে দেওয়া নয়৷ হিংস্রতা রাফ সেক্সের প্রধান অংশ৷ এই ভেবে উত্তেজনার বশে মনের মানুষটিকে আঘাত করে বসলে কখনই নিজেকে ভাল ‘কিসার’ প্রতিপন্ন করতে পারবেন না। উল্টে আপনার হিংস্র মনোভাবই প্রকাশ পাবে৷

সঠিক ভাবে শ্বাস নিন : চুম্বনের সময় শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্ষেত্রে সচেতন থাকুন৷ ঠিক সময় শ্বাস নিন এবং ঠিক সময় শ্বাস ছাড়ুন। চুমু খাওয়ার সময় পার্টনার যাতে একইভাবে ঠিক করে শ্বাস নিতে পারে সেদিকেও নজর রাখুন৷ লম্বা একটানা চুমু খাওয়ার সময় মাঝে মধ্যে ভালবাসার কথা বলুন। এতে আদরের উত্তেজনা আরও বাড়ে৷

জিভের খেলা : লিপলকের সময় জিভের একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ থাকে৷ জিভের ঠিকঠাক ওঠানামা চুমুকে পারফেক্ট করে। তাই চুমুর খেলার সময় জিভের খেলাটাও একটু বুদ্ধি করে খেলুন৷