প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :      মিয়ানমারের কাচিন বিদ্রোহী ও সেনাবাহিনীর সঙ্গে নতুন করে সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। এই পরিপ্রেক্ষিতে হাজারো খ্রিস্টান ঘরবাড়ি ছেড়ে পালাচ্ছেন। দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়েছে।

 

জাতিসংঘ বলছে, মিয়ানমারে উত্তরাঞ্চলে চলতি মাসের শুরু থেকে এ পর্যন্ত প্রায় চার হাজার মানুষ ঘরবাড়ি থেকে পালিয়ে গেছেন।
সম্প্রতি ওই অঞ্চলে কাচিন ইন্ডিপেন্ডেন্স অর্গানাইজেশন (কেআইও) ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে পুরনো দ্বন্দ্ব নতুন করে মাথাচাড়া দিয়েছে।
মিয়ানমারের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তারা বিদ্রোহীদের ওপর বিমান হামলা চালিয়েছে।

এদিকে, চীনের সীমান্তবর্তী সংঘাত-পীড়িত এলাকাগুলোয় হাজার হাজার মানুষ আটকা পড়ে আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। দাতব্য-সংস্থাগুলো ওই এলাকায় যেতে সরকারের অনুমতি চেয়েছে।

জাতিসংঘের অফিস ফর দ্য কোঅর্ডিনেশন অব হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাফেয়ার্স (ওসিএইচএ) প্রধান মার্ক কাটস বলেছেন, আমাদের সবচেয়ে বড় উদ্বেগের জায়গা হচ্ছে বেসামরিক ব্যক্তিদের নিরাপত্তা।

প্রসঙ্গত, কাচিন বিদ্রোহীদের সঙ্গে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নতুন করে সংঘাতের ঘটনা এমন এক সময় ঘটছে যখন রাখাইনের রোহিঙ্গারা নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। খ্রিস্টান সংখ্যাগরিষ্ঠ কাচিন প্রদেশের বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলো স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে ১৯৬১ সাল থেকে কেন্দ্রের সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে।