প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  এ বছরের মধ্যেই জাতীয় গ্রিডে আরো তিন হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যোগ হবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। গতকাল শনিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘একটা সময় দেশে ১২ ঘণ্টা বা তার চেয়েও বেশি সময় বিদ্যুৎ থাকত না। আমরা সে সময় পার করে এসেছি। বর্তমান সরকার বিদ্যুৎ উত্পাদনে রেকর্ড করেছে। এখন তেমন লোডশেডিং হয় না। সামনে অবস্থার আরো উন্নতি হবে। প্রতিটি শিল্পে চাহিদামাফিক জ্বালানি দিতে পারবে সরকার।’

 

তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) নতুন কম্পানি পেট্রোম্যাক্স এলপিজির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী  জানান, আগামী ২৬ মের মধ্যে পাইপলাইনে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) যুক্ত হবে।

গৃহস্থালি, শিল্প ও পরিবহন খাতে এলপিজি সরবরাহ করতে ‘চলো মিলি প্রয়োজনে, আয়োজনে’ প্রতিপাদ্য সামনে রেখে বাজারে আসছে ইয়ুথ গ্রুপের নতুন কম্পানি পেট্রোম্যাক্স এলপিজি।

শনিবার পেট্রোম্যাক্স এলপিজির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমান মিতা ও ডা. হাবিবে মিল্লাত, পেট্রোম্যাক্স এলপিজির চেয়ারম্যান রেজাকুল হায়দার, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফিরোজ আলম প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিদ্যুৎ  প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের প্রায় ৭৫ শতাংশ আবাসিক এলাকায় এখন এলপিজি সুবিধা পাচ্ছে। ভবিষ্যতে বাংলাদেশের শতভাগ এলাকায় যাতে এলপিজি সুবিধা যায়, সেটি নিয়ে কাজ করছে সরকার। তিনি বলেন, ‘দক্ষিণাঞ্চল আমাদের এখন প্রধান টার্গেট। বিদ্যুতের হাব হচ্ছে দক্ষিণাঞ্চল। পদ্মা সেতু হয়ে গেলে দক্ষিণাঞ্চলের আর্থ-সামাজিক অবস্থার আমূল পরিবর্তন ঘটবে।’