প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :   যে দেশে নারীদের খোলামেলা পোশাক পার নিষিদ্ধ। নিয়ম ভাঙলে চরম শাস্তির নিদান আছে। সেই আরব মুলুকের টিভিতে দাপিয়ে বেড়ালেন স্বল্পবসনা নারী কুস্তিগীর। এমন বিজ্ঞাপনে শোরগোল পড়েছে কড়া ধর্মীয় বাঁধনে মোড়া সৌদি আরবে। ঘটনার জেরে ক্ষমা চেয়েছে দেশটির টিভি কর্তৃপক্ষ। কেউ মনে করছেন রক্ষণশীলতাকে ভেঙে দেওয়ার যে পথ নিয়েছে দেশটি তা নজির তৈরি করছে।

 

বিবিসি জানাচ্ছে, সৌদি আরবের টেলিভিশনে প্রথমবারের মত লাইভ রেসলিং সম্প্রচার হচ্ছিল। ওয়ার্ল্ড রেসলিং এন্টারটেইনমেন্ট এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জেদ্দা শহরে। কুস্তি প্রতিযোগিতায় অংশ নেন সৌদি আরব এবং ইরান এই দুই দেশের প্রতিযোগী। সরকারি টিভিতে সেই ম্যাচ চলাকালীন বিজ্ঞাপনের বিরতিতে হঠাৎ পর্দায় স্বল্পবসনা মহিলা কুস্তিগীর দেখতে পাওয়া যায়। এতেই চমকে যায় আরবের গোঁড়াপন্থীরা। শুরু হয়ে যায় বিতর্ক। পরিস্থিতি সামাল দিতে সম্প্রচার বন্ধ করে দেয় রাষ্ট্রীয় টিভি।

জানা গিয়েছে, কুস্তি দেখতে দর্শক সারিতে পুরুষ-নারী উভয়েই উপস্থিত ছিলেন। তবে কোনো নারী কুস্তিগীর এই লড়াইতে অংশ নেননি। আচমকা স্বল্প বসনা নারী কুস্তিগীরদের বিজ্ঞাপন দেখে দর্শকরা চোখ ফেরাতে পারেন নি। তারা উপভোগ করেন সেই দৃশ্য। কারণ স্টেডিয়ামের সম্প্রচার তড়িঘড়ি বন্ধ করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। ম্যাচ দেখার জন্য অডিটোরিয়ামে মহিলা সহ ৬০ হাজার দর্শক উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি খোলা হাওয়া ঢুকতে শুরু করেছে সৌদি আরবে। গোঁড়া ইসলামি কাঠামোয় পরিচালিত আরবের বর্তমান যুবরাজ তথা ভবিষ্যৎ বাদশা মোহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশে দ্রুত শুরু হতে চলেছে সিনেমা প্রদর্শন। কড়া ধর্মীয় আইনে আরব ভূমিতে তিন দশকের বেশি সময় সিনেমা হল বন্ধ। গত বছর দুয়েক ধরে একটু একটু করে এ ধরণের বিনোদনের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়া হচ্ছে দেশটির সমাজকে।

শুধু বিনোদন দুনিয়াই নয়, সৌদি আরবের জনজীবনে বিশেষ করে নারীদের উপর আরোপিত কিছু নিয়ম শিথিল করতে উদ্যোগী হয়েছেন যুবরাজ। দেওয়া হয়েছে গাড়ি চালানোর অনুমতি। ইতিমধ্যে সৌদি নারীরা ফুটবল খেলার অনুমতি পেয়েছেন। তবে পোশাক নিয়ে শিথিলতা এখনও আছে। তারই মাঝে খোলামেলা পোশাকের নারী কুস্তিগীর দেখে চমকে গেলেন আরব নাগরিকরা।