প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :   সিরিয়ার স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, ভৌগোলিক অখণ্ডতা ও ঐক্য সমুন্নত রাখতে ঘনিষ্ঠ সহযোগিতা অব্যাহত রাখার প্রকাশ্য ঘোষণা দিল ইরান, রাশিয়া ও তুরস্ক। তিন দেশ একই সঙ্গে সিরিয়ার চলমান সংকটের স্থায়ী সমাধানের পথ খুঁজে বের করার জন্য ত্রিপক্ষীয় সহযোগিতা জোরদার করারও ঘোষণা দিয়েছে।

 

এতদিন ইরান ও রাশিয়া সিরিয়ার আসাদ সরকারকে সহযোগিতা করে আসলেও প্রকাশ্যে বিষয়টি কখনো ঘোষণা দেওয়া হয়নি। এর মধ্য দিয়ে বিশ্ব রাজনীতিতে একটি নতুন ক্ষমতা বলয় হিসেবেও রাশিয়া, ইরান ও তুরস্কের আবির্ভাব ঘটল বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক কুটনৈতিক মহলের অনেক বিশেষজ্ঞ।

শনিবার মস্কোয় ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ, রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ ও তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসগ্লুর মধ্যে বৈঠক শেষে এক যৌথ বিবৃতিতে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, ২০১৭ সালের নভেম্বরে এবং ২০১৮ সালের এপ্রিলে ইরান, রাশিয়া ও তুরস্কের প্রেসিডেন্টরা সিরিয়া বিষয়ে ত্রিপক্ষীয় সহযোগিতার যে ঘোষণা দিয়েছেন তা শক্তিশালী করা হবে।

চলতি এপ্রিল মাসের গোড়ার দিকে সিরিয়ার সংঘর্ষরত পক্ষগুলোর মধ্যে একটি টেকসই যুদ্ধবিরতি কার্যকর এবং দেশটিতে শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করতে সম্মত হন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান। গত ৪ এপ্রিল তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় ওই ত্রিপক্ষীয় শীর্ষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ মস্কোয় শনিবারের বৈঠক শেষ বলেন, সামরিক উপায়ে সিরিয়া সংকটের সমাধান সম্ভব নয়। কিছু সুনির্দিষ্ট দেশের সামরিক হস্তক্ষেপে সিরিয়া পরিস্থিতির আরো অবনতি হবে বলে তিনি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।