প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :   নেদারল্যান্ডের আমস্টারডাম স্কিফোল এয়ারপোর্ট বিশ্বের অন্যতম সেরা বিমানবন্দর। তবে এ বিমানবন্দরই যখন বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কবলে পড়ে সবকিছু বন্ধ করতে বাধ্য হয় তখন যাত্রীদের অবাক না হয়ে উপায় থাকে না। তেমনই ঘটনা ঘটল এবার। এতে বিপুল সংখ্যক যাত্রীকে দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

 

রবিবার রাতে বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কবলে পড়ে স্কিফোল এয়ারপোর্ট। এরপর এয়ারপোর্টের অধিকাংশ সেবাই বন্ধ হয়ে যায়। এতে বেশ কিছু ফ্লাইট বাতিল করতে হয় কর্তৃপক্ষকে। ফলে বিপুল সংখ্যক যাত্রী এয়ারপোর্টে বিমানে উঠতে কিংবা ব্যাগ নিতে অপেক্ষা করতে থাকেন। ক্রমে তাদের ভিড় এত বেড়ে যায় যে, এয়ারপোর্ট কর্তৃপক্ষ সব কার্যক্রম প্রায় বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়।

ইউরোপের সবচেয়ে ব্যস্ত বিমানবন্দরের একটি এই স্কিফোল এয়ারপোর্ট। ২০১৭ সালের বিশ্বের সেরা বিমানবন্দরের তালিকায় ১১ তম অবস্থান এই এয়ারপোর্টের।

রাতে বিদ্যুৎ বিভ্রাটের পর সকালে তা চালু করা সম্ভব হলেও বিপুল সংখ্যক যাত্রী বিলম্বিত ফ্লাইটগুলোতে চড়ার অপেক্ষায় ছিলেন। এ সময় সকালের ফ্লাইটের জন্য নতুন করে যাত্রীরা আসতে থাকলে এয়ারপোর্টটি লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়। ফলে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ যাত্রীদের বিমানবন্দরে আসতে নিষেধ করতে থাকে।

বিদ্যুৎ বিভ্রাটে অবস্থা বেগতিক দেখে এয়ারপোর্ট কর্তৃপক্ষ এক টুইট বার্তায় জানায়, ‘চেক-ইন ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যাত্রীদের এয়ারপোর্ট ত্যাগ করতে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত এয়ারপোর্টে গাড়ি ও ট্রেনে করে প্রবেশও বন্ধ থাকবে। সকাল নয়টা পর্যন্ত কোনো ফ্লাইটও এয়ারপোর্টে আসবে না।’

বিদ্যুৎ বিভ্রাটের সময় ভোর ৪:২০ মিনিটে অপেক্ষমাণ যাত্রীদের এয়ারপোর্ট ত্যাগ করার আহ্বান জানায়।। এ সময় সব ইনকামিং ফ্লাইট সকাল নয়টা পর্যন্ত বন্ধ রাখারও নির্দেশ দেওয়া হয়।

এয়ারপোর্টের ভিড় আশপাশের রাস্তাতেও জ্যাম তৈরি করে। ফলে সাময়ীকভাবে রাস্তাও বন্ধ হয়ে যায়। এতে যাত্রীদের অনেকেই গাড়ি ছেড়ে পায়ে হেঁটে এয়ারপোর্টে যাতায়াত করতে বাধ্য হয়।