প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :ভারতের জাতীয় দলের অধিনায়ক হিসেবে একের পর এক সিরিজ জিতিয়েছেন দলকে। কিন্তু আইপিএলে বিরাট কোহলির সেই আগ্রাসী ক্যাপ্টেন্সি কাজে আসছে না। ৭ ম্যাচের মধ্যে পাঁচটিতে হেরে পয়েন্ট তালিকার তলানিতে তার দল। কেবলমাত্র দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের চেয়ে এগিয়ে আছে ব্যাঙ্গালুরু। অবস্থা যা দাঁড়িয়েছে, তাতে পরের রাউন্ডে যেতে হলে আগামী ৭ ম্যাচের ৬টিতেই জিততে হবে ব্যাঙ্গালুরুকে। কিন্তু বাস্তবতায় এটা ভীষণ কঠিন বিষয়।

 

রবিবার রাতে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ব্যাঙ্গালুরুর বোলিং ও ফিল্ডিং বিভাগের অবস্থা ছিল শোচনীয়। ক্রিকেটাররা তাদের মানসিকতা ও দক্ষতায় বদল না আনলে তা সম্ভব না বলে মনে করেন অধিনায়ক কোহালি। তিনি বলেন, ‘১৭৫ রান করেও না জেতার কোনো কারণ নেই। আসলে আমরা আজ যা ফিল্ডিং করেছি, তাতে জেতার কথাই নয়। আমাদের সামনে এখন কঠিন চ্যালেঞ্জ। ৬ টি ম্যাচ জিততেই হবে। আমাদের সব ম্যাচই এখন সেমিফাইনাল। মানসিকতা, পারফরম্যান্সে পরিবর্তন আনতে হবে। না হলে জয়ে ফেরা সম্ভব নয়।’

কোহলিদের শিবির যখন হতাশায় ডুবে, তখন নাইট রাইডার্স শিবিরে জয়ে ফেরার আনন্দ। হোটেলে ফিরে আন্দ্রে রাসেলের জন্মদিনও পালন করেছে তারা। রাসেলকে কেক মাখিয়ে শ্যাম্পেনে স্নান করিয়ে দিয়েছে সবাই। তার আগে ম্যাচ জয়ের পুরস্কার নিয়ে অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক বলেন, ‘দলের এগার জনের উপর আস্থা রেখেই এই ম্যাচে নেমেছিলাম। তারই ফল পেলাম। আমি দলে বেশি পরিবর্তন করার পক্ষপাতী কখনই ছিলাম না।’