প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :  একের পর এক উদ্ভাসিত সাফল্যের পর এবার মুদ্রার উল্টোপিঠ দেখতে হচ্ছে লিভারপুলের মিশরীয় তারকা মোহাম্মদ সালাহকে। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে স্টোক সিটির খেলোয়াড়কে আঘাত করার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। গত শনিবার অনুষ্ঠিত ম্যাচটির ভিডিও ফুটেজ খতিয়ে দেখছে ফুটবল এসেসিয়েশন (এফএ)। অভিযোগ প্রমাণিত হলে লিগে তিন ম্যাচ নিষিদ্ধ হতে পারেন। অবশ্য চলতি মৌসুমে লিগে আর মাত্র ২টি ম্যাচ রয়েছে লিভারপুলের।

 

লিগে নিজেদের ৩৬তম ম্যাচে স্টোক সিটির মুখোমুখি হয়েছিলো লিভারপুল। খেলাটি ছিলো লিভারপুলের মাঠে। তারপরও সমানতালে লড়াই করেছে স্টোক সিটি। ফলে প্রথমার্ধ ছিলো গোলশূন্য। এমনকি দ্বিতীয়ার্ধও গোলশূন্যভাবে এগিয়ে যাচ্ছিলো। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়।  ম্যাচের বিরতির কিছুক্ষণ আগে স্টোক সিটির ডিফেন্ডার ব্রুনো মার্টিনস ইন্ডির সঙ্গে বল দখলের সময়ে তার মুখে আঘাত করে বসেন সালাহ। এরপর ম্যাচ শেষে সালাহর বিপক্ষে অভিযোগ আনে স্টোক সিটি।

সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখতে শুরু করেছে এফএ। এজন্য তিন সদস্যের একটি প্যানেলও গঠন করা হয়েছে। এফএর আইনে বলা আছে, যদি খেলা চলাকালীন ম্যাচ পরিচালনাকারীরা মাঠের সহিংস ঘটনাগুলো ভুলবশতঃ দেখতে না পারেন তবে সাবেক রেফারিদের প্যানেলের সদস্যরা তাদের সর্বসম্মতিক্রমে ঐ খেলোয়াড়কে লাল কার্ড প্রদান করতে পারেন।

সেক্ষেত্রে ভিডিও ফুটেজে সালাহর দোষ প্রমাণিত হলে লাল কার্ডের কারনে তিন ম্যাচ নিষিদ্ধ হতে পারেন লিভারপুলের মিশরীয় এ তারকা খেলোয়াড়। ফলে লিগের বাকী দুই ম্যাচে দর্শক হয়েই থাকতে হবে সালাহকে। আর একটি ম্যাচ আগামী মৌসুমে খেলতে পারবেন না সালাহ।

চলতি মৌসুমে দুর্দান্ত পারফরমেন্স করে চলেছেন সালাহ। ইতোমধ্যে লিগে ৩৬ ম্যাচে ৩১ গোল করেছেন তিনি। আর ১টি গোল হলেই প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোল করার রেকর্ড গড়বেন। কিন্তু নিষিদ্ধ হবার সম্ভাবনা থাকায় সেই রেকর্ড গড়ার সুযোগ এখন অনিশ্চিতের মুখে। তবে গোল্ডেন বুটের দৌড়ে বেশ ভালোভাবেই টিকে আছেন এই নব্য মিশরীয় সুপারস্টার।