সুন্দরবনের ডাকাতিয়া খালে র‌্যাব-০৮ ও বনদস্যু গরীবের বন্ধু বাহিনীর মধ্যে বন্দুক যুদ্ধে এক দস্যু নিহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ৩টি দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্র ও বেশ কয়েক রাউন্ড তাজা গুলি। র‌্যাব-০৮ এর উপ-অধিনায়ক জানান, পূর্ব সুন্দরবনের চাদপাই রেঞ্জের জোংড়া ও মরাপশুর সংলগ্ন ডাকাতিয়ার খাল এলাকায় বনদস্যু গরীবের বন্ধু বাহিনী

 

 

 

জেলে, বাওয়ালী ও মৌয়ালদের জিম্মি করে মুক্তিপণ আদায় ও নির্যাতন করছিল এমন খবরের ভিত্তিতে মঙ্গলবার ভোর ৬টার দিকে ওই এলাকায় অভিযান চালায় র‌্যাব-০৮এর সদস্যরা। অভিযানকারীরা ভোরে ডাকাতিয়ার খালে প্রবেশ করা মাত্রই খালের মধ্যে পূর্ব থেকে অবস্থান নিয়ে থাকা দস্যুরা গুলি ছুড়তে থাকে। এ সময় আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। উভয়ের মধ্যে প্রায় আধ ঘন্টা ধরে চলা বন্দুক যুদ্ধের এক পর্যায়ে দস্যুরা ট্রলার থেকে লাফিয়ে পড়ে বনের গহীনে পালিয়ে যায়।

 

 

 

পরে র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নিহত এক দস্যুর মরা দেহ, ১টি একনালা দেশী বন্দুক, ১টি ওয়ানশুটার গান ও ১টি কাটা রাইফেলসহ বেশ কয়েক রাউন্ড তাজা গুলি উদ্ধার করেছে। নিহত দস্যুর মরাদেহ মোংলা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তরের পর লাশের ময়না তদন্তের জন্য দুপুরেই বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে নিহত দস্যুর নাম পরিচয় জানাতে পারেনি র‌্যাব। এ ঘটনায় র‌্যাবের পক্ষ থেকে মোংলা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: ইকবাল বাহার চৌধুরী।