প্রথমবার্তা ডেস্ক রিপোর্ট :   প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেছেন, কোনো রাজনীতিকের জন্য তাঁর কাজের মাধ্যমে নিজের স্থান করে নেওয়া এবং জনগণের সম্মান ও ভালোবাসা পাওয়া জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন।

 

তিনি আরো বলেন, মানুষ মরণশীল এবং প্রত্যেককেই মরতে হবে। কাজের মাধ্যমে বেঁচে থাকেন। জনগণের ভালোবাসা ও সম্মান পাওয়া একজন রাজনীতিকের জন্য সবচেয়ে বড় অর্জন।

 

আজ রবিবার জাতীয় সংসদে প্রয়াত মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হক এবং সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফাসহ কয়েকজন সাবেক মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, মেয়র এবং বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রয়াত মৎস্য ও প্রাণি সম্পদমন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হক এবং সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা, চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হকসহ সকলের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করে দেশ ও জাতি গঠনে তাদের অবদান স্মরণ করেন।

 

তিনি বলেন, কাজের মাধ্যমে জনগণের ভালোবাসা কি করে অর্জন করতে হয়, তা প্রয়াত এ সকল নেতারা প্রমাণ করে গেছেন। তারা তৃণমুল পর্যায়ে কাজ করে মানুষের ভালোবাসা, সম্মান ও মর্যাদা অর্জন করে বারবার জনগণের ভোটে জয়ী হয়েছেন।

 

শেখ হাসিনা বলেন, মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকের অক্লান্ত পরিশ্রমের কারণে মৎস্য উৎপাদনে বাংলাদেশ আজ বিশ্বে ৪র্থ অবস্থানে রয়েছে। প্রাণি সম্পদে আমরা আজ সমৃদ্ধি অর্জন করেছি।

 

তিনি আরো বলেন, মন্ত্রী ছায়েদুল হক আমাদের বিশাল সমুদ্র সম্পদ এলাকায় মৎস্য আহরণে অনেক পরিকল্পনা এবং কাজ করতে শুরু করেছিলেন। তিনি দেশের উন্নয়নে সততা ও একাগ্রতার সাথে যে অবদান রেখে গেছেন, তা স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

 

এ ছাড়াও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফার কর্ম ও জীবন সম্পর্কে বলেন, তিনি মানুষের কল্যাণে কাজ করে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছিলেন।

 

তিনি চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হকের বিভিন্ন অবদানের কথা স্মরণ করে তাদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।