প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    আমি এমন একটা পরিবারে জন্মগ্রহন করেছি, যেই পরিবারের কোন ঝুট ঝামেলা ছিলনা। আমরা পরিবারের সদস্য ছিলাম মাত্র ৪জন। আমি আমার বড় আপু আর আমার বাবা-মা। আমার বাবা সরকারী চাকুরী করে আর মা একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষীকা।

 

 

 

 

ছোটবেলা থেকেই অনেক আদরে মানুষ হয়েছি। কোনদিন কোন কিছুর জন্য আমাকে বাহিরে যেতে হয়নি। সব কিছু হাতের কাছেই পেয়েছি। শহর কি কোনদিন দেখিনি। তবে বড় আপুর বিয়ের পর তার শশুরবাড়ি গিয়েছি কয়েকবার যেটা আমাদের পাশের শহর। আমার এসএসসি পরিক্ষা শেষ হওয়ার পর আমি আমাদের এলাকার কলেজেই ভর্তি হলাম। কোন ছেলে বন্ধু করিনি। যারা ছিল তারা শুধুমাত্র হাই হেলোর মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। ছেলেদের সান্যিধ্য কেমন সেটা বুঝতাম না।

 

 

 

 

মূল কথা আমার ভিতরে মেয়েলি অনুভুতি যেটা বলে সেটা অনুভব করতে পারিনি কখনো। তারপর এইচএসসি অনেক ভালো রেজাল্ট করলাম আর সেই কারনে বাবা-মা দুজনেই আমাকে ভালো জায়গায় পড়াশুনা করানোর চিন্তা ভাবনা করল। আমিও খুব খুশি হলাম বড় শহরে যাব। আমার নানুর বাড়ি বিভাগীয় শহরে। যেখানে বিশ্ববিদ্যালয় আছে মেডিক্যাল কলেজ আছে আরও অনেক কিছু আছে। মা-বাবা দুজনেই আমাকে নানুর বাড়িতে পাঠিয়ে দিল।

 

 

 

 

আমি অনেক আনন্দে ছিলাম। আমার নানুর বাড়িতে নানা নানি মেজ মামা মামি আর আমার ছোট মামা। মেজ মামা চাকুরী করে আর ছোট মামা পড়াশুনা করত। আমি চলে গেলাম নানুর বাড়িতে। বাড়ির সবার সাথে অনেক মজা করতাম। আর ছোট মামার সাথে একটু বেশিই করতাম। মামা মাঝে মাঝে সুযোগ পেলে আমাকে জড়ায়ে ধরত আমার কোন অনুভুতি হতনা। ধীরে ধীরে আমি বুঝতে পারতাম মামা যখন আমাকে ধরত, আমার ভিতর থেকে একটা অন্যরকম অনুভুতি তৈরী হত। আমার খুব ভালো লাগত সেই মুহুর্তটা। তবে সেগুলো মাথাই নিতাম না। একদিন বাসার সবাই বাহিরে গেলো দাওয়াত খাওয়ার জন্য।

 

 

 

 

 

আমি একা ছিলাম, একটুও ভালো লাগছিলনা । ছোট মামা কলেজে ছিল, আমি মামাকে ফোন করলাম। মামা আমার ফোন পেয়ে কিছুক্ষনের মধ্যেই হাজির হয়ে গেল। মামা আসার পর আমার রুমে চলে আসল। আমি খুব খুশি হলাম। মামা আমাকে জড়ায়ে ধরল তারপর আমাকে বিভিন্ন ভাবে আদর করতে লাগল। আমি কিছু বলতে পারছিলাম না কারন আমার অনুভুতিটা অন্যরকম হয়ে গিয়েছিল যেটা আমি আপনাকে বলে বোঝাতে পারব না।

 

 

 

 

সেই সময় দুনিয়ার কোন কিছুই আমার মাথায় ছিলনা যে, আসলেই কি ঘটছে আমার সাথে। তারপর আমরা শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়লাম। যেটা আমার কল্পনার বাহিরে ছিল। দীর্ঘ শারীরিক সম্পর্কের পর মামা আমকে ছেড়ে দিল এবং বলল আজকে যা ঘটেছে কাওকে না জানাতে। পরক্ষনে আমি বুঝতে পারলাম আমি অনেক বড় ভুল কিছু করেছি।

 

 

 

 

 

 

যতই দিন যেতে লাগল আমি আরো দুশ্চিন্তায় ভুগতে লাগলাম। কত বড় পাপ করেছি আমি। তারপর থেকেই আমি ছোট মামার সাথে মেলামেশা কম করে দিয়েছি। এখন আমি অনেক ভাবে নিজেকে বুঝাতে চেষ্টা করি, কেন আমি এমনটা করলাম। আমার অনেক বড় একটা অপরাধবোধ নিয়ে দিন কাটাচ্ছি। ভাইয়া একটা ভালো পরামর্শ দিবেন প্লিজ।