প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:   কোনো না কোনো সময়ে আপনি হয়তো কর্মজীবনে হাঁপিয়ে ওঠেন। হয়তো কাজের চাপে আর একঘেয়েমিতে আপনার মনে হতেই পারে যে ‘আমাকে দিয়ে আর হবে না’। কিন্তু আপনার সবার আগে প্রয়োজন আত্মবিশ্বাসের। তারপর ভাবেন আপনার কাজ কেমন চলছে। কাজ যদি ভালোভাবে পরিবেশ পরিস্থিতি বুঝে এগোতে থাকে তাহলে বুঝবেন আপনার পিছিয়ে পড়ার কোনো কারণ নেই। বরং আপনাকে এগোতে হবে আগের চেয়ে বেশি উদ্যমে। তাই কি দেখে বুঝবেন যে আপনি কাজে ভালো করছেন, সেটাই জানবো এখন।

 

 

 

ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া শুনতে থাকলে: আস্তে আস্তে কাজে অভ্যস্ত হতে থাকলে আপনি কাজ বুঝে যাবেন, ভালো কাজ করবেন। এরপর দেখবেন আপনার কাজের প্রশংসা পেতে শুরু করেছেন। হয়তো প্রথম দিকে এমনটা হতো না। আগে বস, কলিগরা আপনার কাজের ভুল ধরলেও এখন আর তেমন হয় না। মানে আপনি ভালো কাজ করছেন, দক্ষতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

 

 

 

 

কাজ যদি দ্রুত শেষ করতে পারেন: আপনার কাজে ভুলত্রুটি ছাপিয়ে আপনি যদি দেখেন কাজগুলো বেশ দ্রুত শেষ করে ফেলতে পারছেন- তাহলে বুঝবেন অবশ্যই আপনার দক্ষতা বেড়ে গেছে। কাজ শেষ করার জন্য এখন হয়তো আর প্রতিষ্ঠানের হ্যান্ডবুক বা স্প্রেডশিট ঘাঁটতে হয় না, বা সিনিয়র সহকর্মীর সাহায্যও আর নিতে হয় না। তার মানে আপনি নিজেই কাজ বুঝে গেছেন। এর ফলে আপনি যেখানেই কাজ করতে যান না কেন আপনি খাপ খাওয়াতে পারবেন।

 

 

 

 

আত্মবিশ্বাস বাড়তে থাকলে: যদি দেখেন যে আগের মতো নতুন কোনো কাজে হাত দিতে ভয় করে না, তবে আপনি বুঝবেন যে কাজটা পরিণতির দিকে টেনে নেওয়ার জ্ঞানবুদ্ধি আপনার রয়েছে। তখন মনে করবেন আপনি আগের চেয়ে অনেক পরিণত হয়েছেন। নির্দিষ্ট কাজ ছাড়াও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয়ে যথেষ্ট পারদর্শিতা আপনার মধ্যে আছে মনে করবেন। সেই সঙ্গে আপনি এখন অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী তো বটেই।

 

 

 

 

নতুন দায়িত্ব পান যদি: অফিসে একটা কাজ শেষ করতে না করতেই নতুন কোনো দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে আপনাকে। অর্থাৎ, কর্মী হিসেবে প্রতিষ্ঠান আপনাকে ভরসা করে। আপনার কাছে সমস্যা বা দায়িত্বগুলো দেওয়া হবে সেটা আপনি ভালোভাবেই সম্পন্ন করতে পারবেন সেটা প্রতিষ্ঠান বোঝে। এর মানে আপনি আস্থাভাজন হয়ে উঠেছেন।

 

 

 

 

 

কাজ নিয়ে যদি আর আতঙ্ক না হয়: হাতে এমন অনেক কাজ আসে যখন মনে হয়ে এটা করা আপনার পক্ষে সম্ভব নয়। কিন্তু করতে শুরু করলে দেখবেন যে ঠিকই করতে পারছেন। কোনো সমস্যাও হচ্ছে না। অর্থাৎ, সৃষ্টিশীল হয়ে উঠেছেন আপনি।

 

 

 

 

 

একটা সময় হয়তো কাজ এলোমেলো হয়ে যেতো, গুছিয়ে শেষ করতে না পেরে বকাঝকাও শুনতে হতো একসময়ে। কিন্তু এখন কঠিন ও জটিল মনে হলেও সেটা উতরে যেতে পারেন। অর্থাৎ আগের চেয়ে আপনি এখন অনেক এগিয়ে গেছেন।