প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া পান্তা ভাত খেতে পছন্দ করতেন। ছেলে লন্ডনে ব্যারিস্টারি পড়ে এসে ইংরেজদের খাবার খান, দেশি খাবার পছন্দ হয় না। শেষমেষ তাঁর জন্য ইংরেজ খাবারের জন্য বাবুর্চি রাখা হলো। তবে ইংরেজদের খাবার খাওয়া শিখলেও তিনি ইংরেজদের ব্যবহারটা শিখতে পারেননি।

 

 

 

আজ সোমবার বিকেলে গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এক সংবাদকর্মীর প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর সৌদি আরব সফর নিয়ে এই সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়।

 

 

 

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নারী সাংবাদিকদকে জঘন্য ভাষায় বক্তব্যে মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কিছু করার আগেই তিনি আদালতে গিয়েছিলেন। আর তাঁর বিরুদ্ধে শুধু একজন নারীর মামলার কেন? অন্য নারীদেরও করতে হবে। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করুন, আমরা যা করার করবো।

 

 

 

 

পরে মইনুল হোসেন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, মইনুল হোসেন স্বাধীনতার সময় পাকিস্তানিদের পক্ষে দেন দরবার করেন। আবার স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের নিয়ে দল গঠন করেন। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে হাত মেলানো মইনুল হোসেনের কাছ থেকে তাই এরচেয়ে বেশি কী আশা করা যায়।

 

 

 

 

এর আগে মন্ত্রিসভা ছোট করা হবে কিনা? এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি বিভিন্ন দেশের বিরোধী দলের সঙ্গে কথা বলেছি, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে কথা বলেছি। গতবার আমি বলেছিলাম, বিভিন্ন দল থেকে নিয়ে নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভা গঠনের।

 

 

 

 

তবে এবারের মন্ত্রিসভায় বিভিন্ন দলের প্রতিনিধিরা তো আছেন। এই সময়ে এত প্রজেক্ট চলছে, একজন মন্ত্রীর পক্ষে কয়েকটি মন্ত্রণালয় দেখা অসম্ভব। তারপরও আমি বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলেছি।

 

 

 

 

সবদেশে মন্ত্রিসভা রেখেই নির্বাচন করা হয়। তাই দেখি কি করা যায়। এরপরও বিরোধী দল চাইলে মন্ত্রিসভা ছোট করার বিষয়টি বিবেচনা করবো।