প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    এস-৪০০ এমন এক ক্ষেপণাস্ত্র যা প্রচণ্ড শক্তিশালী ও ক্ষমতাধর। আর এ কারণে এই ক্ষেপণাস্ত্রকে বিশ্বের সবচেয়ে কার্যকরী ও আধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা হিসেবে ধরা হয়। এস-৪০০, আগের এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র থেকে অনেক বেশি উন্নত প্রযুক্তি।রাশিয়ার এস-৪০০ কিনতে অনেক দেশই আগ্রহ দেখিয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, চীন, সৌদি আরব, তুরস্ক, ভারত, কাতার। এসব দেশের প্রায় সবাই এস-৪০০ কেনার পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেছে। আল-জাজিরার এক বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, রাশিয়া থেকে এসব প্রযুক্তি কেনা মানে দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক শক্তিশালী এবং দীর্ঘমেয়াদি করা।এস-৪০০তে সর্বাধুনিক এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম স্থাপন করা রয়েছে, যা ইতিপূর্বে পশ্চিমা বিশ্ব কোনো দেশকে দিতে পারেনি।

 

 

 

 

স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসোর্স ইন্সটিটিউটের (এসআইপিআরআই) সিনিয়র রিসার্চার সাইমন ওয়েজেমন বলেন, এস-৪০০’র রাডার, সেন্সর এবং মিসাইল একটি বিরাট এরিয়ায় প্রভাব বিস্তার করতে পারে। এর রাডারে ক্ষমতা প্রায় ৬০০ কিলোমিটার আর মিসাইলের ক্ষমতা ৪০০ কিলোমিটার পর্যন্ত। ওই গবেষক বলেন, এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থায় একত্রে একাধিক লক্ষ্যে নজর রাখতে পারে। এছাড়া এটি এক মিনিটের মধ্যেই স্থান পরিবর্তন করতে পারে।

 

 

 

 

কাউন্সিল অন ফরেইন রিলেশনের সামরিক বিশ্লেষক কেভিন ব্রান্ড বলেন, এটা এমনটি একটি সিস্টেম যা একের মধ্যে সব রয়েছে। এটি একত্রে দূরবর্তী, মধ্যবর্তী বা নিকটবর্তী লক্ষ্য নির্ধারণ করতে পারে। এটি নির্ভর করে এর ব্যবহারের ওপর।তিনি বলেন, এস-৪০০ যে কোনো দেশের জন্য উপযোগী। এই সিস্টেমটি স্থানান্তর বা চলাচলের জন্য যেমন কোনো জটিলতা নেই।