প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডাক্তার জাফরুল্লাহর ফোনালাপের আরো একটি অডিও ফাঁস হয়েছে।সাভারের গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মতুর্জা আলীর সঙ্গে টেলিফোন আলাপে, বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরির ষড়যন্ত্র উঠে আসে।গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে বলেন, ‘ভালো করে একটু ধাওয়া দিয়েন। ২০টা ছাত্র রাখো ভালো করে খাওয়া দাওয়া করো। এখন একটু এগ্রসেভ হও। না হলে বদমায়েশি থামাতে পারবো না। এখন একমাত্র পথ হচ্ছে ওরা এককদম বাড়লে আমাদের ২ কদম বাড়তে হবে।’

 

 

 

গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্তুজা আলী বলেন, ‘জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ে একটা নিপীড়নবিরোধি মানববন্ধন আছে। সেখানে আমাদের ছেলে মেয়েরাও যাবে।’এরপর ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘হ্যা, জাহাঙ্গীর নগরকে প্রবেশ করাতে পারলে অনেক লাভ হবে।’গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্তুজা আলী বলেন, ‘পুলিশকে আজ বলেছি বিদেশি যে মেয়েগুলো আসছে তাদের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব আপনাদের।’

 

 

 

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ‘শুনেছি ইন্ডিয়ান মেয়েরা পিছিয়ে আসছে। ওরা কেনো পিছিয়ে আসবে।  আমাদের ৫ হাজার ছাত্র আছে তার ভেতর ৫০ জনকে যদি আমরা ব্যবহার করতে পারি। কারণ মারপিট করতে ৫০ জনের বেশি ছাত্র লাগে না। মৌলভিকে ২টা মেয়েকে দিয়ে এখন নারী নির্যাতন কেস করায়ে দাও।’গণবিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মর্তুজা আলী বলেন, ‘হ্যা পঞ্চাশজন ছাত্রের এখন লিস্ট করা হয়েছে।’