প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:   খেলার মাঠের একপাশে টুর্নামেন্ট মঞ্চ। মঞ্চের বাঁশের খুঁটির সাথে বাঁধা চারটি ছাগল। টুর্নামেন্ট কমিটির লোকদের কেউ বটপাতা এগিয়ে দিচ্ছেন, কেউ বা মুঠোয় ঘাস ধরছেন সেগুলোর মুখে। খেলা শুরুর ১০ মিনিট আগে শালবনে ঘেরা মাঠের চারপাশে উপস্থিত দর্শকদের দেখাতে ছাগলগুলোকে নিয়ে মাঠ প্রদক্ষিণ করেন উদ্যোক্তারা। খেলার হাফটাইমেও আবার তা করা হয়। খেলা শেষের ৫ মিনিট আগে ছাগলগুলোকে নিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় বাড়িতে। পরের দিনের খেলায় দেখা যায় একই চিত্র।

 

 

 

ঘটনাটি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বীরভূম জেলার নলহাটি থানার একটি গ্রামের। থানার সন্তোষপুর আদিবাসী সিধো কানহো ক্লাবের উদ্যোগে গত রবিবার থেকে শুরু হয়েছে ৩২ দলকে নিয়ে ফুটবল টুর্নামেন্ট। আশপাশের কয়েকটি এলাকার বিভিন্ন টিম অংশ নিচ্ছে টুর্নামেন্টে, দলগুলো সবই আদিবাসীদের।টুর্নামেন্টের আয়োজকরা জানান, প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য বিজয়ী ট্রফিসহ ৩০ কেজি খাসির মাংস পুরস্কার থাকবে। রানার্স আপদের জন্য ট্রফিসহ থাকবে ২৫ কেজি গোশত। সেমিফাইনালে পরাজিত দু’টি দলও বাদ যাবে না। দুই দলের প্রতিটির জন্য বরাদ্দ থাকবে ১০ কেজি করে খাশির মাংস। আর যে ছাগলগুলো প্রতিটি ম্যাচের আগে মাঠে হাজির করা হয়, সেগুলোর মাংসই দেয়া হবে পুরস্কার হিসেবে।

 

 

 

আয়োজকরা জানান, তিন দিন ব্যাপী এই টুর্নামেন্টের খেলা দেখতে গ্রাম থেকে কিছুটা দূরে শালবনের মাঠে আসছেন দূরদূরান্তের দর্শকেরাও। ফাইনাল খেলায় কোন দলের ভাগ্যে ৩০ কেজি মাংস জোটে, তা দেখতে আরও বেশি লোক মাঠে আসবেন বলে আশাবাদী আয়োজকরা।