প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:   স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, নির্বাচনী ঘণ্টা বেজে গেছে। আওয়ামী লীগ নির্বাচনে বিশ্বাস করে আর এর কোনো বিকল্প নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনের স্বার্থে নিজে ঐক্যফ্রন্টসহ বিভিন্ন দলের নেতাদের ডেকে ১৫ দিন সংলাপ করেছেন। আগামী ডিসেম্বরে দেশে নির্বাচনী ফাইনাল খেলা হবে। আমরা খালি মাঠে গোল দেব না।বৃহস্পতিবার বিকালে বগুড়া শহরের ঠনঠনিয়া এলাকায় এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডের সেফালোস্পোরিন ইউনিটের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।এর আগে মন্ত্রী বেলুন, ফেস্টুন ও কবুতর উড়িয়ে ওই ইউনিটের উদ্বোধন করেন।নাসিম বলেন, বিশ্বকাপে মেসিরা গোল মিস করলেও শেখ হাসিনা নির্বাচনী মাঠে গোল মিস করবেন না। বিএনপির ঘাঁটিখ্যাত বগুড়াসহ বিভিন্ন আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা জয়লাভ করবেন।

 

 

 

 

 

তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে আমরা মাঠ ছেড়ে যাইনি; মার খেয়েও মাঠে থেকেছি। কিন্তু বিএনপি নির্বাচন থেকে সরে গিয়েছিল। তাদের নেতাকর্মীরা মেঘ দেখলে ভয়ে পালান। দলে এতো ব্যারিস্টার থাকার পরও এবং নেতাকর্মীরা আন্দোলন করেও তাদের নেত্রীকে জেল থেকে বের করতে পারেনি।বিএনপির উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, যদি জনগণ আপনাদের সঙ্গে থাকে তাহলে নির্বাচনে ভয় পান কেন? চাঁদে সাঈদীকে দেখানোর নামে জ্বালাও-পোড়াও হত্যা করে বিএনপি মানুষের আস্থা হারিয়েছে। আওয়ামী সরকার গঠন করে জঙ্গি দমন ছাড়াও গত প্রায় ১০ বছরে সকল প্রতিশ্রুতি পালন করেছে।তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ নির্বাচনী দল। ১৯৭০ সালে সামরিক শাসনকালেও বঙ্গবন্ধু নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। এরপর দেশ স্বাধীন হয়েছে।

 

 

 

 

 

 

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নে ভারতের চেয়ে এগিয়ে। মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে।এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাজ শেষে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ আবারো ক্ষমতায় এলে এ প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ করা হবে।এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক ডা. এহসানুল কবির জগলুলের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের জিএম (প্লান্ট) সত্যজিৎ দাস ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন প্রতিষ্ঠানের উপ-মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) এসএম আহসান।অন্যান্যের মধ্যে বগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আবদুল মান্নান, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব বাবলু কুমার সাহা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মমতাজ উদ্দিন, বিএমএ সভাপতি মোস্তফা আলম নান্নু, সিবিও নেতা শাহাবুদ্দিন কাহার প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

 

 

 

 

 

পরে মন্ত্রী নন্দীগ্রাম মনসুর হোসেন ডিগ্রি কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাচনী জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ উদ্দিন, সহ-সভাপতি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. মকবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজনু, সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুর রহমান দুলু, আমিনুল ইসলাম ডাবলু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।