প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:   একটি পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছেন৷ স্ত্রীর কাচে সম্প্রতি ধরা পড়ে গিয়েছেন৷ বিবাহিত জীবন তলানিতে৷ সেই এরকমই একটি চিঠি এসেছে আমাদের দফতরে৷ বর্ধমান থেকে পাঠিয়েছেন অনুপম পাল (নাম পরিবর্তীত)৷ তিনি লিখেছেন, ‘আমি একজন বিবাহিত মহিলার সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছি৷ সম্প্রতি আমার স্ত্রী সব জানতে পেরেছে৷ আমার কিছু সেক্স চ্যাট ও পড়েছে৷ মানসিক যন্ত্রণায় আছি৷ বিয়েটা ভাঙতে চাই না৷ আমাদের দুই মেয়ে রয়েছে৷ ওরা ছোট৷’অনুপমকে পরামর্শ দিয়েছেন কলকাতার এক বিশিষ্ট মনোবিদ৷ পরকীয়ায় সঙ্গে যুঝে চলার উপায় বাতলে দিয়েছেন তিনি৷ একই সঙ্গে পরকীয়ায় ধরা পড়লে কী করতে হবে, তাও বলছেন মনোবিদ৷

 

 

 

 

মনোবিদ জানাচ্ছেন, বুঝতে পারছি আপনার অবস্থাটা৷ স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্ক তলানিতে পৌঁছেছে৷ আপনি চান না, বিয়ে ভেঙে যাক৷ প্রথমেই আপনাকে বলব, কোনও আত্মীয়ের সঙ্গে এ বিষয়টি নিয়ে কথা বলবেন না৷ কারণ, আত্মীয়দের সঙ্গে পরামর্শ করলে, অশান্তি বাড়বে বই কমবে না৷ধরা পড়ার পর স্ত্রীকে ‘আই লাভ ইউ’ কথাটা বলবেন না৷ আপনার কাছে কথাটা সত্যি হতেই পারে৷ কিন্ত‌ু ওই মুহূর্তে আপনার স্ত্রীর কাছে ওটার চেয়ে মিথ্যে আর কিছু নেই৷ বরং বিশ্বাস ফেরানোর সময় দিন স্ত্রীকে৷

 

 

 

 

 

সময় সব কিছু বদলে দেয়৷ আপনি যদি নিজের মন থেকে পরকীয়া বন্ধ করেন৷ তা হলে স্ত্রী একটা সময় টিক বুঝতে পারবেন৷ সম্পর্ক ধীরে ধীরে ঠিক হয়ে যাবে৷ স্ত্রীকে সব খুলে বলুন৷ কিছু লোকাবেন না৷ স্ত্রী যদি সত্যিই আপনাকে ভালোবাসে, তা হলে নিশ্চয়ই বুঝবেন, আপনার মনের অবস্থা৷অনেক সময় স্বামী-স্ত্রী সম্পর্ক শুষ্ক হয়ে গেলে, তৃতীয় ব্যক্তির প্রবেশ ঘটে দাম্পত্য জীবনে৷ বলে রাখি, পরকীয়া একদিকে যেমন বিশ্বাসঘাতকতা, আরেকদিকে তেমনই ওয়েক আপ কল৷ অর্থাত্‍‌, পরকীয়া ফাঁস হওয়ার পরে অনেক ক্ষেত্রেই স্বামী-স্ত্রী সম্পর্ক মজবুত হয়ে যায়৷ কোথায় সমস্যা হচ্ছে, সব উঠে আসে আলোচনায়৷