প্রথমবার্তা প্রতিবেদকঃ একের পর এক শহরের নাম পরিবর্তনের আরজি উঠছে ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে। এর মধ্যে অবশ্য এগিয়ে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য উত্তর প্রদেশ। বিজেপির এ নেতার রাজ্যে নাম পরিবর্তনের তালিকায় এবার যোগ হলো আগ্রা।আগ্রার এক বিজেপি বিধায়ক জগন প্রসাদ গর্গ দাবি করেছেন, আগ্রা নামের কোনো মানে হয় না। তাই এই নাম পরিবর্তন করে অবিলম্বে অগ্রবন করে দেওয়া উচিত। এই মর্মে মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে একটি চিঠিও পাঠিয়েছেন উত্তর আগ্রার বিধায়ক জগন প্রসাদ গর্গ। লখনৌতে গতকাল শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি যুক্তি দেন, একসময় এখানে প্রচুন বন ছিল এবং মহারাজ অগ্রসেনের অনুগত আগরওয়ালদের বাস ছিল এখানে। অতএব শহরের নাম আগ্রা নয়, অগ্রবন বা আগ্রাওয়াল হওয়া উচিত। এখানেই শেষ নয়। তিনি মহাভারতের উদাহরণ এনে বলেছেন, মহাকাব্যেও এই জায়গাকে অগ্রবন বলেই চিহ্নিত করা হয়েছিল। পরে তা আকবরাবাদ হয় এবং সেখান থেকেই আগ্রা নামটি আসে। জগন প্রসাদ গর্গ জানিয়েছেন, তিনি যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবেন।

 

 

 

মুখ্যমন্ত্রী আদিত্যনাথ ক্ষমতায় আসার পর ইতিমধ্যে পাল্টে ফেলেছেন ফৈজাবাদ এবং এলাহাবাদের নাম। যোগী রাজ্যে ফৈজাবাদ এখন অযোধ্যা নামে এবং এলাহাবাদ হবে প্রয়াগরাজ নামে পরিচিত।নাম বদলের এ হিড়িক শুধু উত্তর প্রদেশেই সীমাবদ্ধ নেই; দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্যের শহরগুলোর নামও বদলের ঘোষণা দিয়েছে বিজেপি। মুসলিম ঐতিহ্য জড়িয়ে আছে এমন বেশ কয়েকটি ঐতিহাসিক শহরের নাম আছে এ তালিকায়। দক্ষিণের রাজ্য তেলেঙ্গানার এক বিজেপি নেতা হায়দরাবাদের নাম পাল্টে ভাগ্যনগর করার দাবি জানান। মুসলিম শাসকদের দেওয়া নাম কিংবা মুসলিম উচ্চারণের নামগুলোকে বদলে হিন্দুত্ববাদকে আঁকড়ে রাখা এবং নির্বাচনের আগে এর আরো বেশি প্রচারের জন্যই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকার এ কাজ করছে বলে অভিযোগ করেছে বিরোধীরা।এদিকে যোগীর রাজ্যে নাম বদলের এ সংস্কৃতির সমালোচনা করেছেন খোদ যোগীর মন্ত্রিসভার সদস্য ওম প্রকাশ রাজভর। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, বিজেপি কি দলের মুসলিম নেতা-মন্ত্রীদের নামও পাল্টে দেবে?

 

 

 

 

উত্তর প্রদেশে বিজেপির সঙ্গেই জোটে রয়েছে সুহেলদেব ভারতীয় সমাজ পার্টি (এসবিএসপি)। সেই দলের প্রধান রাজভর। যোগীর মন্ত্রিসভায় তিনি অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ দপ্তরের দায়িত্বে। মন্ত্রিসভায় থেকেও যোগী রাজ্যের নানা বিতর্কিত সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বরাবরই সরব রাজভর। যোগীর একের পর এক নাম বদলের সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় মুখ খুলে তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুক্তার আব্বাস নকভি, জাতীয় মুখপাত্র শাহনওয়াজ হুসেন, উত্তর প্রদেশের মন্ত্রী মহসিন রেজার মতো নেতারা বিজেপির মুসলিম মুখ। আগে তাঁদের নাম পাল্টাক বিজেপি।’