প্রথমবার্তা, নিজস্ব প্রতিবেদন : সম্প্রতি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ থেকে মনোয়ন পত্র তুলেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সফলতম এবং জনপ্রিয় খেলোয়ার নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত মাশরাফি বিন মর্তুজা ।তিনি নড়াইল-২ আসন থেকে আওয়ামীলীগের মনোয়ন প্রত্যাশি ।
মাশরাফির রাজনীতিতে প্রবেশের এ ঘটনা সাধারন মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছে ।কেউ কেউ মাশরাফিকে রাজনীতিতে সাদরে স্বাগত জানিয়েছে কেউ কেউ তার রাজনীতিতে প্রবেশকে ভাল চোখে দেখছেনা ।চলুন আজ জেনে নেই বিশ্বের আর কোন কোন তারকারা খেলোয়ারী জীবন থেকে রাজনীতিতে প্রবেশ করেছেন ।

 

 

 

 

 

জর্জ উইয়াঃ আফ্রিকান ফুটবলার ।২০০৩ সালে খেলা থেকে অবসর নিয়ে রাজনীতিতে সক্রিয় হন ।বর্তমানে তিনি পশ্চিম আফ্রিকার দেশ লাইবেরিয়ার প্রেসিডেন্ট ।রোমারিওঃ ১৯৯৪ সালে ব্রাজিলের বিশ্বকাপ জেতার অন্যতম কারিগর রোমারিও ।বর্তমানে তিনি ব্রাজিলের সিনেটর ।রিওডি জেনেইরোর গভর্ণরের জন্য নির্বাচনে লড়তে চাচ্ছেন ।

 

 

 

 

 

 

নভজ্যোত্‍ সিংহ সিধুঃ ভারতীয় টেলিভিশনের জনপ্রিয় উপস্থাপক সিধু ।তিনি একসময় ভারতীয় জাতীয় সেরা ওপেনার ছিলেন ।তিনি ২০০৪ সালে বিজেপিতে এবং ২০১৭ লে দলবদল করে কংগ্রেসে যোগ দেন ।বর্তমানে তিনি পান্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরেন্দ্র সিংহের মন্ত্রিসভার সদস্য ।অর্জুন রানাতুঙ্গাঃ শ্রীলঙ্কার বিশ্বকাপজয়ী দলের অধিনায়ক ছিলেন তিনি ।খেলা থেকে অবসর নিয়ে তিনি রাজনীতিতে হাত পাকান ।বর্তমানে তিনি শ্রীলঙ্কার পর্যটন দফতরের মন্ত্রী ।

 

 

 

 

 

 

সনাত্‍ জয়সুরিয়াঃ ২২ গজের ক্রিকেট মাঠের হার্ডহিটার ছিলেন তিনি ।বিশ্বের বাঘাবাঘা বোলারদের চুনোপুটি বানিয়ে ছেড়েছেন ব্যাটের শাসনে ।তিনি সনাত্‍ জয়সুরিয়া ।শ্রীলঙ্কান জনপ্রিয় ওপেনার ব্যাটসম্যান ছিলেন ।২০১০ সালে শ্রীলঙ্কার মাতারা কেন্দ্রের সাংসদ নির্বাচিত হন ।ইমরান খানঃ পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সফলতম অধিনায়ক ছিলেন ।খেলা থেকে অবসরে গিয়ে ১৯৯৬ সালে পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফ নামে একটি রাজনৈতিক দল গঠন করেন তিনি ।এ বছরই পাকিস্তানের সাধারন নির্বাচনে ১১০ আসনে জয়ী হয়ে তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন ।

 

 

 

 

 

এ তো গেলো ক্রিকেট-ফুটবল জগতের কথা ।আরো অনেক খেলার তারকা,সিনেমা জগতের তারকারা রাজনীতিতে এসেছেন এবং সফল হয়েছেন ।মাশরাফিকে তো আমরা সবাই দেশপ্রেমিক,ভাল মানুষ হিসেবে জানি,তাই না ?যে দল থেকেই আসুক না কেন তাকে স্বাগত জানান ।আমাদের দেশের রাজনীতিতে ভাল মানুষের খুব অভাব ।মাশরাফির মতো মানুষগুলির রাজনীতিতে আসাটা জরুরী ।তাছাড়া, ২০১৯ বিশ্বকাপটাই তার জীবনের শেষ বিশ্বকাপ সম্ভবত ।এরপর তিনি অবসরে চলে যাবেন ।সেক্ষেত্রে,এবারের নির্বাচনে তার অংশগ্রহণ করাটা যৌক্তিক নয় কি ?

(আবিদ হোসেন)

বাংলাদেশ সময়: ০৬:৪৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৫, ২০১৮