প্রথমবার্তা, নিজস্ব প্রতিবেদন :    অল্পবয়সী ছেলে মেয়ে থেকে শুরু করে যারা নতুন বাবা মা হয়েছেন, এমন কেউ যারা তাদের পরিবারের থেকে আলাদা হয়ে পড়েছেন, কোন ঘটনায় ভীষণ শোকগ্রস্ত অথবা যারা জীবন সায়াহ্নে রয়েছেন তাদের সবাইকে এই একাকীত্ব গ্রাস করতে পারে। একাকীত্ব সকল বয়স নির্বিশেষে একটি সমস্যা হিসাবে স্বীকৃত হওয়া উচিত, এ মন্তব্য যুক্তরাজ্যের ইতিহাসের প্রথম একাকীত্ব বিষয়ক মন্ত্রী ট্রেসি ক্রাউচের। তিনি প্রথমবারের মতো একাকীত্ব কৌশল প্রকাশ করেছিলেন।

 

 

 

 

 

আপনি কি একাকীত্ব অনুভব করেন? সঙ্গী দূরে থাকে? মন খারাপ হলে সঙ্গ দেয়ার কেউ নেই? তা হলে এ সেবা শুধুই আপনার জন্য। যারা সঙ্গী দূরে থাকায় কিংবা না থাকায় একাকীত্বে ভুগছেন, তাদের সঙ্গ দিতে, জড়িয়ে ধরতে এক ব্যতিক্রমী ব্যবস্থা চালু হয়েছে। বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে এ সেবা প্রচলিত।প্রথমে নিউইয়র্ক দিয়ে শুরু হলেও এখন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য তো বটেই অস্ট্রেলিয়াসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এ সেবা।

 

 

 

 

 

 

১.প্রথমে একাকী নারীদের জন্য জড়িয়ে ধরার সেবা চালু হলেও পরে তা পুরুষ ও নারী দুই ক্ষেত্রেই চালু হয়। সম্পর্ক থাকলেও যারা একা, স্বামী বা স্ত্রী কাজের জন্য বাইরে, কিংবা সম্পর্কে নেই, তাদের কথা মাথায় রেখেই এ ‘কাডলিং সার্ভিস’ শুরু। সমাজতাত্ত্বিক, মনোবিদরা বলছেন, আলিঙ্গন মন খারাপ কিংবা একাকীত্ব দূর করার সবচেয়ে বড় ওষুধ। বছর দুয়েক আগে এ পরিসেবা প্রথম চালু হয় নিউইয়র্কে। তখন দর ছিল ঘণ্টাপ্রতি ৫৮০০ টাকা। অস্ট্রেলিয়ায় এর খরচও মোটামুটি একই। এই পরিসেবা নেয়া গ্রাহক ৪০ বছর বয়স্ক নারী সাসকিয়া ফ্রেডেরিকস বলেন, মাসে মাত্র কয়েক দিন তার স্বামী সঙ্গে থাকেন। একাকীত্ব বোধ করেন। তাই স্বামীর সঙ্গে পরামর্শ করেই এমনটি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

 

 

 

 

 

 

২.উচ্চ মাধ্যমিক পাশের সার্টিফিকেট আছে? তাহলেই মিলতে পারে বয়ফ্রেন্ড হওয়ার চাকরি। মহিলাদের একাকীত্ব দূর করতে ভাড়ায় বয়ফ্রেন্ড দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে একটি সংস্থা। মহিলার নাম এবং পরিচয় সম্পূর্ণ গোপন রাখা হবে। সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া হবে অনলাইন প্রক্রিয়ায়। রয়েছে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন। গুগল সার্চে গিয়ে লিখতে হবে ‘রেন্ট অ্যা বিএফ।’এই ভাড়ায় নেওয়া বয়ফ্রেন্ডদের পারিশ্রমিক কিছু কম নয়। প্রতি ঘণ্টায় কমপক্ষে ৩০০-৪০০ টাকা থেকে শুরু করে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত। তবে ভাড়ার বয়ফ্রেন্ড হতে গেলে রয়েছে একগুচ্ছ শর্তাবলী। সুঠাম চেহারার অধিকারী হতে হবে। তবে পেটানো চেহারা থাকলেই চাকরি পাকা এমন নয়। সভ্য-ভদ্র হওয়াটাও বাঞ্ছনীয়। ভালো কথা বোলার দক্ষতা থাকতে হবে। পুলিশের খাতায় নাম থাকলে চলবে না। শিক্ষাগত যোগ্যতা কমপক্ষে দ্বাদশ শ্রেণী উত্তীর্ণ হতে হবে। আবেদনের সময় জমা দিতে হবে সেই সার্টিফিকেট। ভাড়ার বয়ফ্রেন্ডরা অবশ্য ভাড়ার সব টাকা নিজের পকেটস্থ করতে পারবেন না। ভাড়ার ৩০ শতাংশ জমে নেবে পরিচালক সংস্থা। এছাড়াও রয়েছে একগুচ্ছ শর্তাবলী। যার মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ হল ভাড়া করা বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে কোনও পার্টিতে যাওয়া যাবে না। করা যাবে না যৌন সম্পর্ক।

 

 

 

 

 

 

 

অনেক দেশের সরকার এখন বিশ্বের সবচেয়ে বড় স্বাস্থ্য ঝুঁকিগুলোর একটি হিসেবে একাকীত্বকে স্বীকৃতি দিয়েছে। কেউ যদি একাকীত্ব বোধ করে সেটা স্বীকার করতে পারার মতো মানসিকতা তৈরি করতে হবে। তবেই মিলবে সমাধান।