প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      রাস্তাঘাটে টয়লেটের অভাবে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় নারীদের। পুরুষদেরও ভোগান্তি কম নয়। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশেই বাড়ির বাইরে বেরিয়ে পর্যাপ্ত টয়লেট পাওয়া যায় না। এর মধ্যেই দেশে পালিত হচ্ছে বিশ্ব টয়লেট দিবস।প্রতি বছর ১৯ নভেম্বর তারিখটি বিশ্ব টয়লেট দিবস হিসেবে পালন করা হয়। শতভাগ টয়লেট সুবিধা নিশ্চিতকরণের বিষয়টি মাথায় রেখে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দিবসটি পালন করে থাকে। বাংলাদেশেও আজ দিবসটি পালিত হচ্ছে।টয়লেটের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাফল্য প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে বেশি। বিশেষ করে ভারতে যেখানে প্রায় ৭০ কোটি মানুষের টয়লেট নেই সেখানে বাংলাদেশের প্রায় সব বাড়িতেই টয়লেট রয়েছে।

 

 

 

দেশের স্যানিটেশন কার্যক্রমকে শতভাগ সফলের দাবি নিয়ে বাংলাদেশ ওয়াশ অ্যালায়েন্স আজ দিবসটি পালন করবে। দিবসটিতে ওয়াশ অ্যালায়েন্স তার সদস্য সংগঠন ডরপ, আশা, ওয়াটার এইডসহ অন্যান্য সংগঠনের সমন্বয়ে রাজধানীতে র‌্যালি ও পথসভার আয়োজন করেছে।উল্লেখ্য, ২০০১ সালে বিশ্বে টয়লেট ব্যবহার ও স্যানিটাইজেশন সম্পর্কে ক্যাম্পেইন শুরু করে ওয়ার্ল্ড টয়লেট অর্গানাইজেশন।ওয়ার্ল্ড টয়লেট অর্গানাইজেশনের (ডব্লিউটিও) সর্বশেষ তথ্যমতে, বিশ্বে ২ দশমিক ৬ বিলিয়ন মানুষ বর্তমানে সঠিক ও স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট সুবিধা থেকে বঞ্চিত রয়েছে। অর্থাৎ বিশ্বের ৪০ ভাগ মানুষ স্যানিটেশন সুবিধার বাইরে রয়ে গেছে।

 

 

 

 

 

 

ওয়াটার এইড এবং সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজের জরিপের তথ্যমতে, ঢাকা শহরে প্রতিদিন গড়ে ৫৫ লাখ ভাসমান মানুষ  চলাফেরা করে। এছাড়া ১২ থেকে ১৫ লাখ মানুষ প্রতিদিন আসা যাওয়া করলেও তাদের জন্য সঠিক টয়লেটের ব্যবস্থা অপ্রতুল।

 

 

 

 

 

 

এক রিপোর্টে দেখা যায় রাজধানীর ধানমণ্ডি, ভিক্টোরিয়া পার্ক, কলতা বাজার, ফার্মগেট, গুলিস্তানসহ বেশ কয়েকটি এলাকার পাবলিক টয়লেটের অবস্থা মোটেই ভালো নয়। ঢাকায় বসবাসকারী লোকসংখ্যা প্রায় এক কোটি ৮০ লাখ। এর মধ্যে প্রতিদিনই রাজধানীর বাইরে থেকে আগত ও নগরের স্থানীয় লোকসংখ্যা মিলে প্রায় ৫৫ লাখ পথচারীর পদচারণে ব্যস্ত থাকে রাজধানীর পথঘাট। কিন্তু বিপুল পরিমাণ এই জনসংখ্যার জন্য নেই পর্যাপ্ত টয়লেটব্যবস্থা। জানা গেছে, দুই সিটি করপোরেশনের টয়লেট মিলে ঢাকার মোট পাবলিক টয়লেটের সংখ্যা ৬৯টি। তবে সম্প্রতি বেশ কয়েকটি পাবলিক টয়লেট নতুনভাবে স্থাপন করা হলেও বিপুল পরিমাণ এই জনসংখ্যার জন্য তা পর্যাপ্ত নয়। অন্যদিকে মহিলাদের জন্য নেই এসব পাবলিক টয়লেট ব্যবহারের পর্যাপ্ত পরিবেশ। নোংরা, দুর্গন্ধযুক্ত এসব পাবলিক টয়লেট নারীবান্ধব নয় বলে প্রচণ্ড দুর্ভোগ পোহাতে হয় নারীদের।