প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:      দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, নির্বাচনী হলফনামায় ভুল তথ্য দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কারণ হলফনামায় সম্পদের তথ্য গোপন করলে তাকে চিহ্নিত করা কঠিন কিছু নয়। প্রার্থীদের হলফনামা জনসম্মুখে প্রকাশ করা হবে।আজ সোমবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি এ কথা বলেন।

 

 

 

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, আমি বিশ্বাস করি যে,আমাদের যারা জনপ্রতিনিধি হবেন, তারা তাদের সম্পত্তির হিসাব হলফনামায় সঠিকই দেবেন। যদি কেউ সঠিক না দেয়, তার জন্য কমিশনে ‘ডেফিনেটলি’ ব্যবস্থা থাকবে। আমি মনে করি না, কোনো দুর্নীতিবাজকে আমাদের দেশের মানুষ নির্বাচিত করবে। এটা আমার বিশ্বাস হয় না। যদি এমন কিছু হয়, তাহলে আমরা আমাদের আইনের আওতায় আনার চেষ্টা করবো।

 

 

 

 

এক প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, নির্বাচনের ব্যাপারে আমার কিছু বলার নেই। নির্বাচন হচ্ছে কি হচ্ছে না, এটা আমাদের বিবেচ্য বিষয় নয়। আমরা আমাদের কাজ করে যাবো। যারা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন, আমরা চাইবো নির্বাচন কমিশনে তারা তাদের সঠিক সম্পদের হিসাব জমা দেবেন। গোলমাল দেখলেই আমি আমার কাজ করবো। ব্যবস্থা নেবো।

 

 

 

 

 

ইকবাল মাহমুদ বলেন, আমরা কখনই স্বপ্রণোদিত হয়ে নির্বাচন কমিশনকে বলবো না ক,খ,গ বা অন্য কেউ এমন, এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নাও।অন্য এক প্রশ্নের উত্তরে ইকবাল মাহমুদ বলেন, সামনে নির্বাচন আছে কি নেই সেটা বিবেচনা না করেই আমরা আমাদের কাজ করি। অবৈধ সম্পদ যাদের আছে, তাদেরকে আমরা ধরবো।

 

 

 

 

 

আমাদের সুপারিশের মধ্যে সব সত্য তাও বলছি না। আমাদের প্রতিপক্ষ ভাবলে দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ হবে না। দুদকের একার পক্ষেও দুর্নীতি নির্মূল করা সম্ভব নয় বলেও জানান দুদক চেয়ারম্যান।