প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ট্রাকের ধাক্কায় রিকশা থেকে পড়ে শিশু নাবিলার মৃত্যুর ঘটনায় তার পরিবারকে কেন ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। গতকাল সোমবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ জনস্বার্থে দায়ের করা একটি রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে এই রুল জারি করেন।

 

 

 

 

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিআরটিসি, পুলিশের আইজি, ডিআইজি ট্রাফিক, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের দক্ষিণের ডিসি ও মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মো. আব্দুল হালিম এবং তাঁর সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট জামিউল হক ফয়সাল।

 

 

 

 

 

গত ২২ অক্টোবর রিকশাযোগে নিউ মার্কেট থেকে মোহাম্মদপুর যাওয়ার পথে আসাদগেটের কাছে একটি ট্রাক রিকশার পেছনে ধাক্কা দিলে এক বছর বয়সী শিশু নাবিলা মায়ের কোল থেকে ছিটকে পড়ে ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে। হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিত্সক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পর মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ মামলা না নেওয়ায় শিশুর পক্ষে বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট ও চিলড্রেন চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন গত ২৯ অক্টোবর সংশ্লিষ্টদের উকিল নোটিশ পাঠায়।

 

 

 

 

নোটিশে ট্রাকচালককে আটক করা ও আইনগত ব্যবস্থার বিষয়ে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা জানতে চাওয়া হয়। কিন্তু স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশের পক্ষ থেকে নোটিশের কোনো জবাব না দেওয়ায় গত রবিবার বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট ও চিলড্রেন চ্যারিটি বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন জনস্বার্থে এ রিট দায়ের করে।

 

 

 

 

 

আদালতের আদেশের পক্ষে রিট আবেদনকারীর আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম জানান, আদালতের আদেশ পাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে নাবিলার মৃত্যুর পর কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা প্রতিবেদন আকারে জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি এ মামলার পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী ৬ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছেন।