প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:     বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে- বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য সব আয়োজন যেন করে রেখেছে সরকার ও প্রশাসন।বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে গিয়ে নির্বাচন সুষ্ঠু করতে বিএনপির পক্ষ থেকে বিভিন্ন অভিযোগ ও ১৩ দফা দাবি উত্থাপন শেষে বেরিয়ে আসার সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

 

 

 

 

মোয়াজ্জেমে হোসেন আলাল এসময় ক্ষমতাসীন দল ও প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাদের নির্বাচনী আচরণবিধি লংঘনের অভিযোগ করেন।বলেন, নৌকার পক্ষে এখনও প্রচার চালাচ্ছেন সরকারি কর্মকর্তারা। নির্বাচনে সমতল ক্রীড়াভূমি (লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড) তৈরিতে ইসির সুস্পষ্ট নির্দেশনা দরকার। আমরা সেই নির্দেশনা চাই।তিনি বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সব দলের জন্য সমতল ক্রীড়াভূমি সৃষ্টি করতে আমরা এর আগেও নির্বাচন কমিশনকে বলেছি। কিন্তু কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

 

 

 

 

 

আমাদের মনোনয়নপ্রত্যাশীসহ তৃণমূল নেতাকর্মীদের প্রতিদিন গ্রেফতার করা হচ্ছে। গ্রেফতার নেতাকর্মীদের সুনির্দিষ্ট তালিকা আমরা নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছি।এর আগে প্রশাসনে রদবদল, নেতাকর্মীদের হয়রানি বন্ধসহ ১৩ দফা দাবি নিয়ে বৃহস্পতিবাল বেলা দেড়টার দিকে নির্বাচন কমিশনে যায় মোয়াজ্জেম হোসেন আলালের নেতৃত্বে বিএনপি প্রতিনিধিদল।তারা আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে ইসি সচিবের দফতরে অভিযোগ জমা দেন।

 

 

 

 

 

প্রসঙ্গত, আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ২৮ নভেম্বর, বাছাই ২ ডিসেম্বর, প্রত্যাহার ৯ ডিসেম্বর। আর প্রতীক বরাদ্দ ১০ ডিসেম্বর।