প্রথমবার্তা, প্রতিবেদক:    আজ ২ ডিসেম্বর, ২০১৮, রোববার। ১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ।গ্রেগরিয়ান বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ৩৩৬ তম (অধিবর্ষে ৩৩৭ তম) দিন।একনজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

 

 

 

 

 

 

ঘটনাবলি:- ১৮০৪ – নেপোলিয়ান ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হন। ১৮১৫ – নেপালের রাজা ও ব্রিটিশদের মধ্যে শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরিত। ১৮২৩ – স্বাধীনচেতা মার্কিন রাষ্ট্রপতি জেমস মনরো তার বিখ্যাত ও মনরো নীতি ঘোষণা করেন। ১৮৫২ – তৃতীয় নেপোলিয়নকে সম্রাট করে দ্বিতীয় ফরাসি সাম্রাজ্য ঘোষিত হয়। ১৮৫৬ – ফ্রান্স ও স্পেনের সীমান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ১৮৫৯ – আমেরিকার দাস বিদ্রোহী ও সমাজ সংস্কারক জন ব্রাউনকে ফাঁসি দেওয়া হয়।১৯৪২ – স্ট্যালিন গ্রাডে জার্মানির পরাজয়। ১৯৪২ – আমেরিকার শিকাগো শহরে পরীক্ষামূলকভাবে বিশ্বের প্রথম পারমাণবিক চুল্লি চালু করা হয়। ১৯৪৬ – ব্রিটিশ সরকার ভারতের চার নেতাকে সংসদীয় সভায় যোগ দিতে নিমন্ত্রণ করেছিল। তাঁরা হলেন- নেহরু, বলদেব সিং, জিন্নাহ ও লিয়াকত আলী। ১৯৪৭ – ফিদেল ক্যাস্ট্রো ঘোষণা দেন তিনি মার্কসিস্ট-লেনিনিস্ট এবং কিউবার লক্ষ্য সমাজতন্ত্র। ১৯৪৮ – ফ্রাঙ্ক যোসেফ অস্ট্রিয়ার রাজা হন। ১৯৫৪ – এশিয়ার দেশ লাওস পূর্ণ স্বাধীনতা লাভ করে।

 

 

 

 

 

১৯৫৬ – কিউবার অবিসংবাদিত নেতা ফিদেল কাস্ট্রো স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু করেন। ১৯৭১ – সংযুক্ত আরব আমিরাত বৃটিশ উপনিবেশবাদ থেকে স্বাধীনতা অর্জন করে। ১৯৭৫ – বিকালে চেয়ারম্যান মাও সেতুং সফররত মার্কন প্রেসিডেন্ট কেরালড রুডোলফ ফোর্ড, তাঁর স্ত্রী বেটি ফোর্ড এবং তাঁর সফরসংগীদের সঙ্গে সাক্ষাত্ করেন। ১৯৭৮ – রোমে আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন তহবিল সদর দফতর স্থাপিত।১৯৮২ – ইউনিভার্সিটি অব উতাহ মেডিকেল সেন্টারে বিশ্বের প্রথম কৃত্রিম হৃৎপিন্ড প্রতিস্থাপন করা হয়। এ কৃত্রিম হৃৎপিন্ড দিযে় দন্ত চিকিৎসক বার্নে ক্লার্ক ১১২ দিন বেঁচে ছিলেন। ১৯৮৪ – ভূপালে বিষগ্যাসে ৩ হাজার লোক নিহত এবং ৫০ হাজার লোক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ১৯৮৯ – ভিপি সিং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নিযুক্ত হন। ১৯৯০ – একীভূত জার্মানিতে প্রথম সাধারণ নির্বাচনে হেলমুট কোলের নেতৃত্বে ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাট দল জয়লাভ করে। ১৯৯৫ – লাওস প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৯৬ – মার্কিন ইন্টার কোম্পানি শক্তিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত সুপার কম্পিউটার অবিষ্কার করেন। ১৯৯৭ – বাংলাদেশ সরকার ও পার্বত্য বিচ্ছিন্নতাবাদী শান্তি বাহিনীর সঙ্গে ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

 

 

 

 

 

জন্ম:- ১৮৫৯ – জর্জ সেউরাট, তিনি ছিলেন ফরাসি চিত্রশিল্পী। ১৮৮৫ – জর্জ রিচার্ডস মিনট, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী আমেরিকান চিকিৎসক ও অধ্যাপক। ১৮৯২ – বিপ্লবী গোলাম আম্বিয়া খান লোহানি জন্ম গ্রহণ করেন। ১৮৯৬ – সোভিয়েত ইউনিয়োনের সামরিক নেতা জুকোভ জন্ম গ্রহণ করেন। ১৮৯৭ – ইভান বাগ্রাময়ান, তিনি ছিলেন রাশিয়ান জেনারেল। ১৯২১ – পটুয়া চিত্রশিল্প কামরুল হাসান জন্ম গ্রহণ করেন। ১৯২৫ – জুলি হ্যারিস, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেত্রী ও গায়িকা। ১৯৩০ – গ্যারি স্ট্যানলি বেকার, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী আমেরিকান অর্থনীতিবিদ ও অধ্যাপক। ১৯৪৪ – ইব্রাহিম রুগোভা, তিনি ছিলেন কসোভোর প্রথম রাষ্ট্রপতি, প্রথম সারির কসোভো-আলবেনীয় রাজনীতিবীদ, বুদ্ধিজীবী ও লেখক। ১৯৫৯ – বমান ইরানী, তিনি ভারতীয় অভিনেতা ও গায়ক। ১৯৬০ – সুবর্ণা মুস্তাফা, তিনি বাংলাদেশী অভিনেত্রী।১৯৬৮ – লুসি লিউ, আমেরিকান অভিনেত্রী ও প্রযোজক। ১৯৭৬ – ফিদেল আলেসান্দ্রো কাস্ত্রো রুজ, তিনি ছিলেন একজন কিউবান রাজনৈতিক নেতা ও সমাজতন্ত্রী বিপ্লবী। ১৯৭৮ – নেলি কিম ফুরটাডো, তিনি কানাডীয় কন্ঠশিল্পী ও গীতিকার ও যন্ত্রশিল্পী। ১৯৮১ – ব্রিটনি স্পিয়ার্স, আমেরিকান গায়ক, গীতিকার, নৃত্যশিল্পী ও অভিনেত্রী।

 

 

 

 

 

মৃত্যু:- ১৮৮১ – কার্ল মার্কসের স্ত্রী ও আমৃত্যু সহযোদ্ধা জেনি মার্কস । ১৮৮৮ – তুর্কি কবি নেমিক কামাল । ১৯৫৭ – হ্যারিসন ফোর্ড, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেতা। ১৯৬৫ – সৈয়দ এমদাদ আলী, তিনি ছিলেন বাংলাদেশী সাহিত্যিক। ১৯৬৬ – লাউৎসেন এখবার্টস ইয়ান ব্রাউয়ার, তিনি ছিলেন ওলন্দাজ গণিতবিদ। ১৯৮২ – মার্টি ফেল্ডম্যান, তিনি ছিলেন ইংরেজ অভিনেতা, গায়ক, পরিচালক ও চিত্রনাট্যকার। ১৯৮৭ – লুইস ফেদেরিকো লেলইর, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ফরাসি বংশোদ্ভূত আর্জেন্টিনার চিকিৎসক ও বায়োকেমিস্ট। ১৯৮৫ – ফিলিপ্ লার্কিন, তিনি ছিলেন ইংরেজ লেখক ও কবি। ১৯৯১ – বিমল মিত্র, তিনি ছিলেন বাংলাদেশী কথাসাহিত্যিক।২০১৪ – জেয়ান বেলিভেয়াউ, তিনি ছিলেন কানাডিয়ান আইস হকি খেলোয়াড়।