স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝিনাইদহের ৪টি সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয় লাভ করায় জামানত হারাচ্ছেন ধানের শীষের তিন প্রার্থী ও হাতপাখা প্রতীকের এক প্রার্থী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফলাফল থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়।

নির্বাচন কমিশন সূত্র জানায় কোন প্রার্থীর জামানত বাঁচাতে হলে পোলকৃত ১০০টি ভোটের বিপরীতে কমপেক্ষ .০৮টি ( দশমিক শূন্য আট) ভোট পেতে হবে। সেই হিসাবে ঝিনাইদহের ৩ টি আসনে ধানের শীষের প্রার্থীরা কেউ .০৮ ( দশমিক শূন্য আট) ভোট পাননি। ভোটের ফলাফলে দেখা যায় ঝিনাইদহ ১ (শৈলকুপা) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের আব্দুল হাই ২,২২,০৩৫ পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের এডভোকেট আসাদুজ্জামান পেয়েছেন ৬,৬৬৮ ভোট। ঝিনাইদহ ২ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক তাহজীব আলম সিদ্দিকী সমি ৩,২৫,৮৮৬ পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত হাতপাখা প্রতীক ফখরুল ইসলাম পেয়েছেন ৯,২৯৩ ভোট। ঝিনাইদহ ৩ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের শফিকুল আজম খান চঞ্চল ২,৪২,৫৩২ পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের জামায়াত নেতা অধ্যাপক মতিয়ার রহমান পেয়েছেন ৩২,২৪৯ ভোট। ঝিনাইদহ ৪ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের আনোয়ারুল আজিম আনার ২,২৬,৩৯৬ পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের সাইফুল ইসলাম ফিরোজ পেয়েছেন ৯,৫০৬ ভোট। নির্বাচন অফিসার মেহেদী হাসান জানান, কোন আসনে বৈধ ভোটের বিপরীতে শতকরা .০৮ (দশমিক শূন্য আট) শতাংশ ভোট না পেলে সেই প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত হবে।