প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ  প্রশ্ন: সমাজে এই ধারণা প্রচলিত আছে যে, কোনো মৃতের জন্য সত্তর হাজার বার কালিমা তাইয়্যেবা পড়লে সে জাহান্নাম থেকে মুক্তি পাবে। কেউ কেউ নিজে জীবদ্দশায় এই উদ্দেশ্যে সত্তর হাজার বার কালেমা পড়ে। তবে মৃতের জন্য অর্থ ব্যয় করে পড়ানোর রেওয়াজটা বেশি। এটা কি হাদীস দ্বারা প্রমাণিত? আর মৃতের উদ্দেশ্যে টাকা দিয়ে কুরআন খতম করানো কি জায়েয?

 

 

 

 

উত্তর: প্রশ্নোল্লিখিত কালিমার খতমের কথা কোনো হাদীসে নেই। এটি লোকমুখে প্রচলিত কথা, যার কোনো ভিত্তি নেই। ইমাম ইবনে তাইমিয়া রাহ.কে এ সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, ‘এটি সহীহ বা জয়ীফ কোনো সনদেই বর্ণিত নেই।’ –মাজমুউ ফাতাওয়া ইবনে তাইমিয়া ২৪/৩২৩

 

 

 

 

 

প্রকাশ থাকে যে, কালিমা তাইয়্যেবা পড়া উত্তম জিকর। একাধিক হাদীসে এই কালিমা পাঠ করার ফযীলত এসেছে। এক হাদীসে আছে, যে ব্যক্তি এখলাসের সাথে কালেমা তাইয়্যেবা পাঠ করবে সে জান্নাতে যাবে।-মুসনাদে আহমদ ৪/৪১১তাই নিজের জন্য কালেমা পড়া কিংবা মৃতের ঈসালে সওয়াবের উদ্দেশ্যে পড়া ভালো। কিন্তু প্রশ্নোক্ত নিয়মটি ঠিক নয়। আর ঈসালে সওয়াবের জন্য অন্যকে পারিশ্রমিক দিয়ে কালিমা তাইয়্যেবা পড়ানো, কুরআন খতম করানো, বা কোনো জিকর করানো বৈধ নয়। এতে মৃতের নিকট কোনো সওয়াব পৌঁছে না। উপরন্তু ইবাদতকে অর্থোপার্জনের মাধ্যম বানানোর কারণে গুনাহ হবে।