প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ   বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ভারত ও চায়নার সঙ্গে বাণিজ্যিক বৈষম্য কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে আমাদের আগের থেকে অগ্রগতি হয়েছে। এ দুটো দেশ প্রায় আড়াই কোটি জনংখ্যার একটি বড় বাজার।বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ভারতকে আমরা বড় টার্গেট করেছি।

 

 

 

 

 

 

 

বর্তমানে ভারতের বাজারে আমাদের কাপড়, আরএফএলের প্লাস্টিকের গ্লাসসহ বিভিন্ন পণ্য রফতানি হচ্ছে। ইতিমধ্যে আমাদের রেডিমেড গার্মেন্টও রফতানি শুরু হয়েছে। চায়নাতেও আমাদের পণ্যের বাজার সৃষ্টিতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

 

 

 

 

 

প্রতিযোগিতামূলক পণ্য হিসবে চায়নায় আমরা গার্মেন্ট রফতানি করতে পারি। আমাদের উদ্দেশ হলো রফতানি বাড়ানো।শুক্রবার দুপুরে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনকের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

 

 

 

 

টিপু মুনশি বলেন, এ দুটি দেশের বাইরেও সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ার সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়নের বিষয়ে আমাদের আলোচনা হয়েছে। আমরা ২০২১ সালের মধ্যে রফতানি আয় ৬০ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছি। যার মধ্যে ৫০ বিলিয়ন ডলার কেবল গার্মেন্ট থেকে আয় করা সম্ভব।

টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনকের সমাধিতে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির শ্রদ্ধা নিবেদন। ছবি: যুগান্তর

 

এ সময় অন্যদের মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলী খান, টুঙ্গিপাড়ার পৌর মেয়র শেখ আহম্মদ হোসেন মীর্জা, সাবেক পৌর মেয়র ইলিয়াস হোসেনহ টুঙ্গিপাড়া আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।