প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ  একটি জন্তুই হতে পারে আমাদের সবথেকে ভালো বন্ধু। মানুষ কোনও না কোনও দিন বেঈমানি করতে পারে। কিন্তু জন্তুদের রক্তে কিংবা স্বভাবে বেঈমানি শব্দটা নেই। তারা শুধু উপকার করতেই জানে। কুকুর যে ঠিক কতটা প্রভুভক্ত হতে পারে আর প্রভুর জন্য কী কী করতে পারে, তা আমাদের এখন আর অজানা নয়।প্রভুর জীবন বাঁচানোর জন্য নিজের জীবনও দিয়ে দিতে পারে কুকুর।

 

 

 

 

এমন ঘটনার নজির আমরা এর আগেও বহু দেখেছি। ফের এমনই এক প্রশংসার নজির গড়ল কেলসে, গোল্ডেন রিট্রিভার। প্রায় ২৪ ঘণ্টা ঠাণ্ডার মধ্যে প্রভুর শরীরের উপর শুয়ে থেকে, প্রভুকে ঠাণ্ডায় জমে যাওয়া থেকে এবং মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচালো সে।নিউ ইয়ার ইভের সন্ধেবেলা ফার্ম হাউজ থেকে জ্বালানি নিয়ে আসার জন্য বাড়ি থেকে বেরোন মিশিগানের বাসিন্দা ৬৪ বছরের বব। কিছুদূর যাওয়ার পরই তিনি পা পিছলে পড়ে যান।

 

 

 

 

 

শুধু তাই নয়, পড়ে গিয়ে তার ঘাড় ভেঙে যায়। তিনি চিৎকার করে প্রতিবেশীদের ডাকার চেষ্টা করেন। কিন্তু তার গলার স্বর কেউ শুনতে পান না। কারণ প্রতিবেশীদের বাড়ি বেশ কিছুটা দূরে। শুনতে পায় ববের পোষ্য ৫ বছরের কেলসে। প্রভুর চিৎকার শুনে সে দৌড়ে আসে। এসেই প্রভুর শরীরের উপর সে শুয়ে পড়ে। ক্রমাগত ববের মুখ, হাত জিভ দিয়ে চাটতে থাকে। যাতে প্রভু জ্ঞান না হারান, যাতে প্রভু ঠাণ্ডায় জমে গিয়ে মারা না যান, তার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালাতে থাকে।

 

 

 

 

 

সঙ্গে চিৎকারও করতে থাকে সে।গোটা রাতটা কেটে যায়। কোনও প্রতিবেশীর সাহায্য পান না বব। প্রায় ২০ ঘণ্টা পর ববের এক প্রতিবেশি কেলসের ডাক শুনতে পান। সাহায্য করতে দৌড়ে আসেন রিক নামের এক ব্যক্তি। তাড়াতাড়ি ববকে হাসপাতালে নিয়ে যান। অপারেশন করা হয় ববের। আশ্চর্যজনকভাবে খুব তাড়াতাড়ি সেরে ওঠেন বব।

 

 

 

 

 

চিকিৎসকেরাও বলেন, ববের পোষ্য কেলসের একটানা তাকে জিভ দিয়ে চাটার ফলেই তিনি বেঁচে ফিরেছেন।সত্যিই, এত কিছু জানার, পড়ার পরেও সেই আমরা মানুষেরা নিরপরাধ, নিষ্পাপ প্রাণীগুলোর উপর নির্মম অত্যাচার চালাব। তাদের অকারণে হত্যা করব। সত্যি, এটা মানুষের পক্ষেই করা সম্ভব। মানুষের মতো নিষ্ঠুর জন্তুরাও নয়।সূত্র : ২৪ ঘণ্টা