প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ   ২০০৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত জনপ্রিয় ছবি ‘মুন্না ভাই এমবিবিএস’-এর সেই ছেলেটি, যে কিনা প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হয়ে বিষ পান করে হাসপাতালে ভর্তি হয়। সেই হাসপাতালের কলেজে ডাক্তারি পড়তে ভর্তি হন মুন্না ভাই (সঞ্জয় দত্ত)। ছবিতে প্রেমে ব্যর্থ হওয়া ওই অভিনেতার নাম বিশাল ঠক্কর। গত তিন বছর ধরে বিশালের কোনো খোঁজ মিলছে না। এমনটিই দাবী করছে তাঁর পরিবার, স্বজন ও বন্ধুরা।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

বিশালের পরিবারের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো জানায়, ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর রাতে বিশাল তার মা দুর্গা ঠক্করকে সিনেমা দেখতে যাওয়ার প্রস্তাব দেন। কিন্তু তিনি তখন রাজী হননি। ওইদিন রাতে বাড়ি থেকে ৫০০ টাকা নিয়ে বেরিয়ে পড়েন বিশাল। মধ্যরাতে তাঁর বাবাকে ক্ষুদে বার্তায় জানিয়ে দেন যে, সে তাঁর বন্ধুদের সঙ্গে নতুন বছর উদযাপন করে সকালে ফিরবেন। ওটাই ছিল বিশালের সঙ্গে তাঁর পরিবারের শেষ যোগাযোগ। এরপর থেকে তাঁর কোনও সন্ধান পাওয়া যায়নি।পুলিশ শত চেষ্টা করেও বিশালের হারিয়ে যাওয়ার রহস্য উদ্ঘাটন করতে পারেনি।হারিয়ে যাওয়ার দুই মাস আগে ২০১৫ সালের অক্টোবরে বিশালের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেছিলেন এক অভিনেত্রী। কিন্তু তাঁদের মধ্যে প্রেম ছিল বলে পরবর্তীতে  দুই পরিবার একমত হয় এবং মামলা তুলে নেয়।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

রহস্য আরও দানা বাঁধে, যখন বিশালের ওই অভিনেত্রী প্রেমিকা গত বছরের এপ্রিলে রহস্যজনকভাবে খুন হন। মুম্বাইয়ে অভিনেত্রীর ফ্ল্যাট থেকে তাঁর ক্ষত-বিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। সব মিলিয়ে বিশালের হারিয়ে যাওয়ার রহস্য ক্রমশ জটিল হচ্ছে।বিশাল ঠক্কর ২০০১ সালে ‘চাঁদনী বার’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন। এই ছবিতে তিনি অভিনেত্রী টাবুর কিশোর ছেলের চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়ান। ভালো অভিনয় তাঁকে সুযোগ করে দেয় ‘মুন্নাভাই এমবিবিএস’ ছবিতে। এরপর তিনি ‘ট্যাঙ্গো চার্লি’, ‘তুমঃ এ ডেঞ্জারেস অবসেশন’ নামের একাধিক ছবিতে অভনয় করেন।