প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ  সেই আদিকাল থেকেই মানুষের ভেতর কুসংস্কার রয়েই গেছে। একবিংশ শতাব্দিতেও কুসংস্কারমুক্ত হতে পারেনি মানুষ। বেশিরভাগই ক্ষেত্রেই বিজ্ঞান এসব কুসংস্কারকে উড়িয়ে দেয়।

 

 

 

 

 

তবে কিছু কিছু বিষয়ে বিজ্ঞান কিন্তু একেবারেই নীরব।আমাদের দেশেও শহরে কিংবা গ্রামে প্রচলিত আছে নানা কুসংস্কার। তবে উন্নত দেশগুলোতেও কম প্রচলিত নেই! জানা যাক বিভিন্ন দেশের সেসব কুসংস্কার।

 

 

 

 

 

ইংল্যান্ড: ব্রিটিশদের মধ্যে যেসব দম্পতি পরিবার পরিকল্পনা করে থাকেন, তারা একটি জিনিস খাওয়া বাদ দিয়ে থাকেন। সেটি হল লেটুস পাতা।

 

 

 

 

ভারত: নানা কুসংস্কারের মধ্যে মজার তবে প্রচলিত কিছু বিষয় এখনও আছে দেশটিতে। যেমন কোনো পরিবারে শিশু জন্ম নিলে সংসারের অন্য সদস্যরা ১৫ দিন ধরে বাড়িতে প্রদীপ জ্বালাতে পারেন না।

 

 

 

 

 

মন্দিরে পুজোও দিতে যান না। আবার পরিবারের কোনো সদস্যের মৃত্যু হলে, সেই পরিবারে এক বছর বিয়ের অনুষ্ঠান হয় না। এমনকি সেই পরিবারের কেউ সামাজিক কোনো অনুষ্ঠানেও যোগ দিতে যান না।

 

 

 

 

 

 

স্পেন: আঙুরের প্রতি স্পেনের মানুষের রয়েছে আলাদা দুর্বলতা। এই ফলটি খাওয়া নিয়েও তাদের মধ্যে রয়েছে মজার কুসংস্কার। স্পেনীয়রা মনে করেন রাত ১২টার পর ১২টি আঙুর খেলে আগামী ১২ মাস সৌভাগ্য তাদের সাথে থাকবে।

 

 

 

 

 

রাশিয়া: রেস্তোরাঁয় বসলে রুশ অবিবাহিতরা কখনও টেবিলের কোণে বসেন না। তাদের মধ্যে কুসংস্কার হচ্ছে, টেবিলের কোণে বসলে বিয়ের ক্ষেত্রে তাদের সমস্যায় পড়তে হতে পারে।

 

 

 

 

 

জাপান: দেশটির ফুজিয়ামার মানুষেরা কখনোই উত্তর দিকে মাথা দিয়ে শুতে চান না। এ অঞ্চলের মানুষের ধারণা, উত্তর দিকে মাথা দিয়ে শুলে রোগ ব্যাধি আক্রমণ করে। আয়ু কমে যায়।

 

 

 

 

 

 

জার্মানি: জার্মানদের শরীরে দীর্ঘদিন কোনো অসুখ থাকলে তারা অদ্ভূত পন্থা অবলম্বন করেন। অনেকের বিশ্বাস বাড়ির ছাদে লাগানো টালি খুলে ফেললে দীর্ঘদিনের সেই অসুখ সম্পূর্ণ সেরে যায়।