প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সমাজকল্যাণ গবেষণা ইনস্টিটিউটের তৃতীয় বর্ষের এক ছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টার অভিযোগে লালমনিরহাটে করা মামলায় হাতিবান্ধা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তফিউজ্জামান জুয়েলসহ চার আসামির আগাম জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। আসামিদের ৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 

 

 

 

 

বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহীম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল সোমবার জামিন আবেদন খারিজ করে এ আদেশ দেন। যাদের আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে তাদের মধ্যে অন্য তিনজন হলেন মো.ওমর ফারুক ওরফে মানিক, মো. রানা ও মো. ফেরদৌস। আসামিদের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট হাসানুজ্জামান উজ্জ্বল ও শামীমা নাসরিন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল ইউসুফ মাহমুদ মোর্শেদ।

 

 

 

 

 

 

ওই ছাত্রীকে গত ২ জানুয়ারি তিস্তা ব্যারাজ এলাকা থেকে অপহরণের চেষ্টার অভিযোগে গত ৪ জানুয়ারি লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা থানায় মামলা করা হয়। ওই শিক্ষার্থীর মায়ের করা মামলার অভিযোগে বলা হয়, বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় অপহরণের চেষ্টা করা হয়। মামলায় হাতিবান্ধা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তফিউজ্জামান জুয়েল, জুয়েলের সহযোগী ওমর ফারুক মানিক, মো. রানা, মো. ফেরদৌস এবং মাইক্রোবাসচালক মো. জহুরুলকে আসামি করা হয়। মামলার পর জহুরুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। অন্য চারজন গতকাল হাইকোর্টে আত্মসমর্পণ করে আগাম জামিনের আবেদন করেন। আদালত তাঁদের আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন।