প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ    এখন শহরের প্রায় শিশুদের নাকের ডগায় ঝুলে থাকে চশমা। মাঝে মাঝে আশ্চর্য হই। এত অল্প বয়সে ওদের চোখে চশমা কেন? উত্তর খুঁজতে গিয়ে আমার এক সদ্য পাস করা ডাক্তার বন্ধুর সঙ্গে কথা বললাম। সে বিস্তারিত জানাল।তার বক্তব্য হল, এখন বাবা-মায়েরা শিশুদের যথেচ্ছভাবে নিজের মোবাইল ব্যবহার করতে দেন অথবা বিনোদনের জন্য কিনে দেন ট্যাব। এতে অবসরে কিংবা পড়াশোনা ফাঁকি দিয়ে শিশুরা নানা ধরনের গেম খেলে। সারাক্ষণ তাকিয়ে থাকে মোবাইল বা ট্যাবের স্ক্রিনের দিকে।

 

 

 

 

 

ফলে সে দূরের অথবা কাছের বস্তু ঝাপসা দেখে অথবা দেখতে পায় না স্পষ্টভাবে। এই রোগটাকে বলা হয় চোখের ক্ষীণ দৃষ্টি সমস্যা। এই রোগের কারণে ক্লাসের পেছনে বসলে সামনের বোর্ড স্পষ্ট দেখতে পায় না শিশুরা।চিকিৎসক বলেছেন, দিনের বেশির ভাগ সময় স্মার্টফোনের স্ক্রিনে চোখ রাখার কারণে ক্ষীণ দৃষ্টিতে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা। ইউটিউবে বিভিন্ন ভিডিও দেখে, গেমস খেলে- চোখের পলক না ফেলে বিরামহীনভাবে। ফলে এ দৃষ্টি সমস্যা দেখা দেয়।পত্রিকার প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, এক দশক আগেও ৮ থেকে ১০ বছরের শিশুদের এমন অবস্থা দেখা না গেলেও বর্তমানে স্মার্টফোন আর ট্যাবের অতিরিক্ত ব্যবহারের কারণে শিশুদের এই রোগে আক্রান্ত হতে দেখা যাচ্ছে।

 

 

 

 

 

 

আমরা আমাদের শিশুদের ভালোভাবে রাখতে চাই। যেহেতু ভালো রাখতে চাই, তাই র্স্মাট ফোন, ট্যাব থেকে দূরে তাদের রাখতে। বাবা-মা বা অভিভাবকরা যদি বেশি ভালোবেসে, আদর-আহ্লাদ করে তাদের হাতে লাগামহীনভাবে এসব যন্ত্র দিয়ে দেন, তাহলে চোখ নষ্ট হবে নিজের সন্তানেরই। তাই এ বিষয়ে সর্বদা সজাগ ও সচেতন থাকা জরুরি।

শিক্ষার্থী, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়