প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ  শরীরের অনেক অঙ্গই বয়স বাড়ার সাথে বৃদ্ধি পেতে থাকে, কিন্তু যখনই মহিলাদের স্তনের ব্যাপারে আলোচনা করা হয় তখন সবার মুখ বন্ধ হয়ে যায়, কারণ এর সদুত্তর অনেকের কাছেই থাকে না। অনেক ছেলের মনেই এই প্রশ্ন বিভিন্ন সময় এসে থাকে যে, হাত দিয়ে স্পর্শ করলে স্তন কি সত্যিই বৃদ্ধি পায়? জেমে নিন তার উত্তর

 

 

 

বিয়ের পর স্তনের আকারে আসে পরিবর্তন বিয়ের সাথে স্তনের আকার বৃদ্ধি পাওয়া সরাসরিভাবে যুক্ত নয় কিন্তু বিয়ের পর দেখা যায় অধিকাংশ মহিলারই স্তনের আকার বৃদ্ধি পায়। বিয়ের পর একাধিক কারণে স্তন বৃদ্ধি পায়। সুস্থ-স্বাভাবিক মহিলাদের ক্ষেত্রে স্তনের আকার ২১ বছর বয়স অবধিই বৃদ্ধি পায়।

 

 

 

 

 

স্তনে হাত দিলে কি প্রভাব পড়ে?

কিছু মেয়েরা যখন একা থাকে তখন তাদের নজর নিজেদের বক্ষের উপর পরে এবং তারা হাত দিলে সেটির আকার বৃদ্ধি পায়। কিন্তু এটি একটি সম্পূর্ণ ভুল ধারণা, বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে কোনোক্ষেত্রেই এমনটা হয়নি যে, হাত দেওয়ার ফলে স্তনের আকার বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে হ্যাঁ নিয়মিত নিয়ম মেনে ম্যাসাজ করলে স্তনের আকারে সামান্য পরিবর্তন আসে, যা বেশ সময়সাপেক্ষ।

 

 

 

 

 

উত্তেজনায় বৃদ্ধি পায় স্তনের আকার বৈজ্ঞানিকদের গবেষণায় জানা গেছে যখন মহিলারা শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হয় তখন তারা খুবই উত্তেজিত থাকে, এই উত্তেজনার কারণে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে রক্ত সঞ্চালনের পরিমাণ বেড়ে যায় যার ফলে স্তনের আকৃতি বৃদ্ধি পেতে পারে। এক্ষেত্রে মহিলাদের শরীরে যথেষ্ঠ উত্তেজনার প্রয়োজন।

 

 

 

 

 

এই কারণেও বৃদ্ধি পায় স্তন কোনো মহিলা ভারী কোনো জিনিস নিয়মিত ওঠালে বা বিয়ের পর গর্ভবতী থাকাকালীন এবং সন্তানকে স্তনপান করানোর সময় এর আকার বৃদ্ধি পায়।

 

 

 

 

 

হরমোনঘটিত সমস্যা নারী শরীরের বিকাশের জন্য দায়ী প্রধান দুটি হরমোন হল, ইস্ট্রোজেন এবং প্রজেস্টেরন। বিভিন্ন বয়সে এই দুই হরমোনের অনিয়মিত ক্ষরণের ফলে স্তনের আকারে পরিবর্তন আসে।এই ব্যাপারটিতে অবশ্যই গুরুত্ব দেবেন ফিজিক্যাল হওয়ার সময় খেয়াল রাখবেন যে গার্লফ্রেন্ড যদি স্তনে হাত দিতে বাধা দেয় তাহলে তাকে বাধ্য করবেন না এটি করতে দেওয়ার জন্য।