প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ   কোস্টারিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট ও শান্তিতে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী অস্কার আরিয়াসের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এনেছেন সাবেক বিউটি কুইন হিসেবে পরিচিত ইয়াজমিন মোরালেস। আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি এ অভিযোগে মামলা করেছেন। কোস্টারিকার প্রসিকিউটররা এর সত্যতা স্বীকার করেছেন।

 

 

 

 

 

এর আগেও বেশ কয়েকজন নারী এই রাজনীতিকের বিরুদ্ধে একই রকম অভিযোগ এনেছেন। ফলে মানুষের চোখ চড়কগাছ। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া।ইয়াজমিন মোরালেস বলেছেন তাকে নিজের সান হোসে’র বাড়িতে সাবেক প্রেসিডেন্ট আরিয়াস যৌন নির্যাতন করেছেন ২০১৫ সালে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের সম্পর্ক হয়।

 

 

 

 

 

মোরালেস বলেন, তার ওই বাড়িতে যাওয়ার পর অস্কার আরিয়াস আমাকে জড়িয়ে ধরলেন। শক্তি প্রয়োগ করে নিজেকে আমার শরীরের সঙ্গে এঁটে রাখেন। তারপর একটি হাত দিয়ে পোশাকের ওপর দিয়ে আমার বুক স্পর্শ করেন। আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তিনি আমাকে চুমু খেতে থাকেন।পুরো কাহিনী বর্ণনা করতে গিয়ে ইয়াজমিন মোরালেস বলেন, আমি খুব হতাশ হয়ে পড়েছিলাম।এত বিখ্যাত ও যাকে আমি ভীষণ শ্রদ্ধা করি তার মতো একজন মানুষ এ কাজ করবে আমি ভাবতেই পারি নি।

 

 

 

 

 

 

সাবেক প্রেসিডেন্ট অস্কার আরিয়াসের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ এনেছেন কমপক্ষে ৫ জন নারী। তাদের অভিযোগের মধ্যে রয়েছে অসংযত প্রেম নিবেদন অথবা যৌন সুবিধা পাওয়া। তবে প্রথম দিকে যখন অভিযোগ প্রচার হতে থাকে তখন সব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেন অস্কার আরিয়াস। তিনি বলেছিলেন, নারীদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কখনো কোনো নীতি ভঙ্গ করেন নি তিনি। তিনি তার ক্যারিয়ারে সব সময়ই লিঙ্গ সমতার জন্য লড়াই করেছেন।

 

 

 

 

 

উল্লেখ্য, অস্কার আরিয়াস ১৯৮৬ থেকে ১৯৯০ এবং আবার ২০০৬ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত কোস্টারিকার প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি শান্তি ও নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ে একটি ফাউন্ডেশনের প্রধান তিনি। এ প্রতিষ্ঠানটি তার নামে করা। অস্কার আরিয়াসের একজন আইনজীবী গ্লোরিয়ানা ভালাডেরেস বলেছেন, মিডিয়ায় খবর জানার পর তারা নতুন অভিযোগের একটি কপি পেয়েছেন। তবে ৭৮ বছর বয়সী অস্কার আরিয়াস এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করবেন না।