প্রথমবার্তা,প্রতিবেদকঃ  একটা মন্ত্রণালয়ে কোনো মন্ত্রী, উপমন্ত্রী বা প্রতিমন্ত্রী কিছুই দেওয়া হয়নি গত ৭ জানুয়ারি গঠিত ৪৭ সদস্যের মন্ত্রিসভায়। সেটা হলো মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তত্ত্বাবধানে আছে বর্তমানে এটা। নতুন সচিব দেওয়া হয়েছে এই মন্ত্রণালয়ে। রাষ্ট্রপতির কোটায় এখানে সচিব হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে সাবেক প্রধান তথ্য কর্মকর্তা কামরুন্নাহারকে।

 

 

 

 

আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে যে, সংরক্ষিত মহিলা আসনে নির্বাচনের পর মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী বা উপমন্ত্রী দেওয়ার চিন্তা ভাবনা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি তিনদিনের সফরে জার্মানির মিউনিখে যাচ্ছেন। ১৯ ফেব্রুয়ারি তিনি দেশে ফিরবেন।

 

 

 

 

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র বলছে যে, প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার পর মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে একজন প্রতিমন্ত্রী দেওয়া হবে। প্রতিমন্ত্রী হিসেবে তিনজনের নাম আলোচনায় আছে। এদের একজন হলেন, মানবাধিকার এবং উন্নয়নকর্মী এ্যারোমা দত্ত। তিনি এবার সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন।

 

 

 

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে সম্ভাব্য প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দ্বিতীয় যার নামটি শোনা যাচ্ছে তিনি হলেন সূবর্ণা মুস্তাফা। তিনি এবছর একুশে পদক পেয়েছেন। এবং সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে চমক সৃষ্টি করেছেন।

 

 

 

 

 

এছাড়াও কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনে মেয়র পদে নির্বাচন করে পরাজিত আনজুম সুলতানাকেও মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী করার বিষয়ে বিবেচনা করা হচ্ছে। তিনি এবার সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন।

 

 

 

 

 

এছাড়াও দেখা যাচ্ছে যে, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী হিসেবে কে এম খালেদ দায়িত্ব পালন করছেন। এখানেও একজন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বকে উপমন্ত্রী বা পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগের কথা বিবেচনা করা হচ্ছে।ধারণা করা হচ্ছে যে, ২১ ফেব্রুয়ারির পর মন্ত্রিসভায় আরও কজন নতুন মুখ আসতে পারে।|

সুত্র: বাংলা ইনসাইডার