প্রথমবার্তা,বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ার গাবতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, জেলা পরিষদের সদস্য ও আ’লীগের মনোনীত উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী এ.এইচ আজম খান (৬৫) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

 

 

 

 

জানা গেছে, সোমবার রাত ১১টায় এ.এইচ আজম খান ঢাকা থেকে ট্রেনযোগে রওনা হয়ে গতকাল মঙ্গলবার সকাল সোয়া ৬টায় বগুড়া রেলষ্টেশনে পৌঁছেন। এরপর তিনি রিক্সাযোগে বগুড়া শহরের সাতমাথায় আসার পথে ফলপট্রি এলাকায় পৌঁছালে চলমান রিক্সার উপরই হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে পাকা সড়কের উপর লুটিয়ে পড়েন। স্থানীয়রা সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষনা করেন।

 

 

 

 

 

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ১ছেলে, ১মেয়ে, নাতী-নাতনী, জামাইসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। মরহুম আজম খান গাবতলীতে ছিলেন আ’লীগের কান্ডারী। দলকে চাঙ্গা করতে দিনরাত তিনি ছুটে বেরিয়েছেন উপজেলা জুড়ে। নেতাকর্মীদের সবসময় বুকের ভিতর আগলে রেখেছেন। তাঁর এই অকাল মৃত্যুতে আ’লীগ নেতাকর্মী হারিয়েছেন ভালো একজন অভিভাবককে। পিতৃ সমতুল্য এই নেতার মৃত্যুতে অনেকেই যেন এতিম হয়ে গেছেন। আজম খানের এ শুন্যতা যেন পুরোন হবার নয়।

 

 

 

 

 

 

গতকাল বাদযোহর মরহুমের প্রথম নামাজে জানাজা বগুড়া আলতাফুননেছা খেলার মাঠে, ২য় নামাজে জানাজা বাদ আছর গাবতলী পাইলট হাইস্কুল মাঠে এবং বাদ মাগরিব জাইগুলী হাইস্কুল মাঠে ৩য় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় দলীয় নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেনীর পেশার হাজারো মুসুুল্লী অংশগ্রহণ করেন। জানাজা শেষে মরহুমের লাশ বাবা-মা’র কবরের পাশে দাফন সম্পন্ন করা হয়। মরহুম আজম খান উপজেলার রামেশ্বরপুর ইউনিয়নের জাইগুলী গ্রামের মৃত জমশেদ খানের ছেলে।